রাসূল (ছাঃ)-এর ১১টি বিবাহের পিছনে তাৎপর্য কি ছিল?


প্রথমতঃ ৪টির অধিক বিবাহের অনুমতি কেবল রাসূল (ছাঃ)-এর জন্য খাছ। এ অনুমতি আল্লাহ পাক স্রেফ তাঁর রাসূলকে দিয়েছিলেন। অন্য কোন মুসলিমের জন্য নয় (আহযাব ৩৩/৫০)। উম্মতের জন্য কোনরূপ প্রশ্ন ছাড়াই আল্লাহর বিধান অনুসরণ করা অবশ্যক।

দ্বিতীয়তঃ জানা আবশ্যক যে, ২৫ বছরের টগবগে যৌবনে আল্লাহর রাসূল (ছাঃ) প্রথম বিবাহ করেন পরপর দুই স্বামী হারা বিধবা ও চার সন্তানের মা ৪০ বছরের প্রায় বিগত যৌবনা একজন প্রোঢ়া নারীকে। এই স্ত্রীর মৃত্যুকাল অবধি দীর্ঘ ২৫ বছর তিনি তাকে নিয়েই ঘর-সংসার করেছেন। অতঃপর ৫০ বছর বয়সে দ্বিতীয় বিয়ে করেন আর এক ৫০ বছর বয়সী কয়েকটি সন্তানের মা বিধবা মহিলা সাওদাকে নিতান্তই সাংসারিক প্রয়োজনে। এরপর মদীনায় হিজরতের পর মাদানী জীবনের দশ বছরে বিভিন্ন বাস্তব কারণে ও নবুঅতী মিশন বাস্তবায়নের মহতী উদ্দেশ্যে আল্লাহর হুকুমে তাঁকে আরও কয়েকটি বিবাহ করতে হয়। যেমন (১) শত্রু দমনের স্বার্থে ৪র্থ হিজরীতে উম্মে সালামাকে বিবাহ করেন। একই উদ্দেশ্যে ৫ম হিজরীতে জুওয়াইরিয়াহ বিনতুল হারেছকে বিবাহ করেন। ৭ম হিজরীতে ছাফিয়াহ বিনতে হুয়াই বিন আখত্বাবকে বিবাহ করেন। (২) ইসলামী বন্ধন দৃঢ়করণের স্বার্থে। যেমন হযরত আবুবকর ও ওমর (রাঃ)-এর দুই মেয়েকে বিবাহ করা। (৩) সামাজিক কুপ্রথা দূরীকরণের স্বার্থে। যেমন পালিতপুত্র যায়েদের তালাকপ্রাপ্তা স্ত্রী যয়নবকে বিয়ে করা প্রভৃতি  (এ বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা দেখুন : আত-তাহরীক মে’১২ সংখ্যায় নবীদের কাহিনী প্রবন্ধে)। সর্বোপরি বিষয়টি সম্পূর্ণ আল্লাহ তা‘আলার হুকুমেই হয়েছিল। অতএব এ ব্যাপারে প্রশ্ন তোলার কোন অবকাশ নেই।

This entry was posted in বিবাহ রাসূল (ছাঃ) ১১টি করে ছিলেন কেনো?, রাসূল (ছাঃ)-এর ১১টি বিবাহের পিছনে তাৎপর্য কি ছিল?. Bookmark the permalink.

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.