শাক্বীক্ব ইবনু সালামা (রাঃ) প্রায়ই নিম্নের দো‘আটি করতেন। ‘হে আল্লাহ! যদি আপনি আমাকে হতভাগ্য ও পাপিষ্ঠদের তালিকাভুক্ত করে থাকেন তাহ’লে তা মুছে ফেলুন এবং পুণ্যবান ও সৌভাগ্যবানদের অন্তর্ভুক্ত করুন। আর যদি আমাকে সৎকর্মশীলদের তালিকাভুক্ত করে থাকেন তাহলে তা বাকী রাখুন। আপনি যা ইচ্ছা মিটিয়ে থাকেন ও যা ইচ্ছা বাকী রাখেন। প্রকৃত লিখন আপনার কাছেই রয়েছে। এ হাদীছটি কি ছহীহ? এ দো‘আ সিজদায় ও তাশাহহুদের বৈঠকে পড়া যাবে কি? হাদীছটি ছহীহ হ’লে হরকত সহ ‘তাহরীকে’ প্রকাশের অনুরোধ করছি।


শাক্বীক্ব ইবনু সালামা একজন তাবেঈ। তাঁর থেকে এরূপ দো‘আ সাব্যস্ত হয়েছে এবং আব্দুল্লাহ্ ইবনু মাসঊদ ও ওমর (রা) হ’তেও বর্ণিত হয়েছে। সূরা রা‘দের ৩৯ নং আয়াতের ব্যাখ্যায় বিভিন্ন তাফসীর গ্রন্থে এবং বিভিন্ন আক্বীদা সংক্রান্ত গ্রন্থে তা উল্লেখ করা হয়েছে। এটি রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) হ’তে সাব্যস্ত হয়নি। তবে এ দো‘আ তাশাহ্হুদের মধ্যে বলা যাবে (বিস্তারিত দ্রঃ সিলসিলা য‘ঈফা হা ৫৪৪৮)। দো‘আটি নিম্নরূপঃ

اللَّهُمَّ إِنْ كُنْتَ كَتَبْتَنِي فِي أَهْلِ الشَّقَاءِ فَامْحُنِي، وَأَثْبِتْنِي فِي أَهْلِ السَّعَادَةِ، وَ إِنْ كُنْتَ كَتَبْتَنِيْ فِي السُّعَدَاءِ فَأثْبِتْني فِي السُّعَدَاءِ، فَإِنَّكَ تَمْحُو مَا تَشَاءُ وَتُثْبِتُ، وَعِنْدَكَ أُمُّ الْكِتَابِ-

(তাফসীর ত্বাবারী হা/২০৪৮২, ২০৪৮৪; তাফসীর কুরতুবী ৯/৩৩০ প্রভৃতি)। উল্লেখ্য বিভিন্ন গ্রন্থের ভাষায় কিছুটা তারতম্য রয়েছে। তবে ভাবার্থ এক।

Advertisements
This entry was posted in শাক্বীক্ব ইবনু সালামা (রাঃ) প্রায়ই দো‘আটি করতেন and tagged . Bookmark the permalink.