রংপুর হারাগাছে বিড়ি-তামাকের ব্যাপক ব্যবসা থাকায় স্থানীয় অধিকাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ওয়ায মাহফিল ঐসব ব্যবসায়ীদের প্রদত্ত অর্থে পরিচালিত হয়ে থাকে। এক্ষণে এসব দানে দাতার কোন নেকী হবে কি? গ্রহীতা তা গ্রহণ করতে পারবে কি?


বিড়ি-তামাক ইত্যাদি নেশাকর দ্রব্যের অন্তর্ভুক্ত। এগুলির উৎপাদন ও ব্যবসা দু’টিই হারাম। আর হারাম উপার্জন থেকে দান করলে তাতে দাতার কোন নেকী হবে না। কারণ আল্লাহ হারাম বস্ত্ত কবুল করেন না (মুসলিম হা/১০১৫; মিশকাত হা/২৭৬০)। তবে উক্ত অর্থ অন্যের জন্য নিষিদ্ধ নয়। কেননা আল্লাহ বলেন, একজনের পাপের বোঝা অন্যে বইবে না’ (আন‘আম ৬/১৬৪ 

This entry was posted in হারাম অর্থ ঋণ নেওয়া যাবে কি?, হারাম উপার্জন থেকে দান করলে নেকী হ‌বে কি?, হারাম উপার্জন পিতা-মাতার জন্য গ্রহণ করা জায়েয হবে কি?, হারাম কা‌জ যারা ক‌রে তা‌দের বাড়িতে খাওয়া-দাওয়া, উঠা-বসা জায়েয হবে কি?, হারাম বস্ত্ত দ্বারা চিকিৎসা গ্রহণ করা যাবে কি?, হারাম বস্ত্ত বিক্রয় করা যাবে কি?. Bookmark the permalink.