মৃত্যুর কতদিনের মধ্যে ওয়ারিছদের মাঝে সম্পদ বণ্টন করতে হয়? এতে কেউ গড়িমসি করলে কোন পাপ হবে কি?


শারঈ ওযর ব্যতীত পরিত্যক্ত সম্পদ দ্রুত বণ্টন করাই উত্তম। তবে এর কোন নির্দিষ্ট সময় সীমা নেই। হকদারদের ঐক্যমতের ভিত্তিতে কিছু দেরী করাতেও কোন বাধা নেই (শায়খ বিন বায, মাজমূ‘ ফাতাওয়া ২০/২৪৩)। প্রথমে মাইয়েতের ঋণ পরিশোধ করবে। অতঃপর তাঁর কোন বৈধ অছিয়ত থাকলে তা পূর্ণ করবে। অতঃপর বাকী সম্পদ ওয়ারিছদের মধ্যে বণ্টন করবে (নিসা ৪/১১; ইবনু মাজাহ হা/২৭১৫; মিশকাত হা/৩০৫৭)। এ বিষয়ে বেশী দেরী করলে ফেৎনার আশংকা বৃদ্ধি পায় এবং পারস্পরিক সম্পর্ক বিনষ্টের সুযোগ সৃষ্টি হয়। তাই যত দ্রুত সম্ভব বিষয়টি সমাধা করা আবশ্যক। স্মর্তব্য যে, কাউকে বঞ্চিত করার উদ্দেশ্যে কেউ গড়িমসি করলে বা প্রতারণার আশ্রয় নিলে, তার জন্য জান্নাত হারাম হবে (মুসলিম হা/১৩৭; মিশকাত হা/৩৭৬০)।

Advertisements
This entry was posted in সম্পদ মৃত্যুর কতদিনের মধ্যে ওয়ারিছদের মাঝে বণ্টন করতে হয়? and tagged , . Bookmark the permalink.