আমি যে মসজিদে ফজরের ছালাত আদায় করি সেখানকার ইমাম ছাহেব ছালাতের পর কিছু বিদ‘আতী আমল করেন। তাই আমি মসজিদের মধ্যে মুছাল্লা ছেড়ে পৃথক স্থানে যিকির-আযকার করে ইশরাক্বের ছালাত আদায় করি। এতে নেকীর কোন কমতি হবে কি?


ফজরের ছালাতের পর সূর্যোদয় পর্যন্ত মসজিদে বসে তাসবীহ-তাহলীল করার বিশেষ ফযীলত রয়েছে (তিরমিযী হা/৫৮৬; মিশকাত হা/৯৭১)। এছাড়া ফজরসহ যেকোন ফরয ছালাত শেষে মুছল্লী যতক্ষণ স্বীয় স্থানে বসে তাসবীহ-তাহলীল করে, ততক্ষণ ফেরেশতামন্ডলী তার জন্য দো‘আ করতে থাকে এই মর্মে যে, হে আল্লাহ! তুমি তাকে ক্ষমা কর ও তার উপর রহম কর (বুখারী হা/৪৪৫, মুসলিম হা/৬৪৯; মিশকাত হা/৭০২)। অন্য বর্ণনায় ‘মুছাল্লা’-এর স্থানে ‘মসজিদ’ বলা হয়েছে (তিরমিযী হা/৩৩০)। অতএব প্রশ্নকারী যেহেতু মসজিদের বাইরে যাননি সেহেতু নেকীর কোন কমতি হবে না ইনশাআল্লাহ। তবে ইমাম ছাহেবকে বিদ‘আতী আমল থেকে বিরত রাখার চেষ্টা করতে হবে।

Advertisements
This entry was posted in মসজিদে পৃথক স্থানে ইশরাক্বের ছালাত আদায় করলে নেকীর কোন কমতি হবে কি? and tagged . Bookmark the permalink.