ওছমান বিন আফফান (রাঃ)-কে দেখে ফেরেশতারা কেন লজ্জিত হতেন?


ওছমান (রাঃ) উত্তম চরিত্রের অধিকারী এবং অতি লজ্জাশীল ব্যক্তি ছিলেন। রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) বলেন, ‘আমার উম্মতের মধ্যে আমার উম্মতের প্রতি সর্বাপেক্ষা দয়ার্দ্র ব্যক্তি হ’ল আবুবকর, আল্লাহর দ্বীনের ব্যাপারে সর্বাপেক্ষা কঠোর হ’ল ওমর এবং সর্বাধিক ও যথার্থ লজ্জাশীল হ’ল ওছমান’ (তিরমিযী হা/৩৭৯০; মিশকাত হা/৬১১১)। তিনি বাড়ীতে থাকা অবস্থাতেও সব সময় তার দরজা বন্ধ থাকত এবং গোসলের পানি গায়ে ঢালার সময়ও তিনি কাপড় খুলতেন না (আহমাদ হা/৫৪৩, সনদ হাসান)। তাঁর এই অধিক লজ্জাশীলতার কারণে রাসূল (ছাঃ) নিজে তাঁর ব্যাপারে লজ্জা করতেন এবং ফেরেশতাগণও যে তাঁকে লজ্জা করতেন সে ব্যাপারে খবর দিয়েছেন। যেমন আয়েশা (রাঃ) বর্ণিত হাদীছে এসেছে, রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) একদিন তার ঘরে উরু অথবা পা খোলা অবস্থায় শোয়া ছিলেন। সেসময় আবুবকর (রাঃ) অতঃপর ওমর (রাঃ) এসে অনুমতি চাইলে তিনি তাঁদেরকে অনুমতি দিলেন এবং ঐ অবস্থাতেই কথাবার্তা বললেন। কিন্তু ওছমান (রাঃ) অনুমতি চাইলে রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) উঠে বসলেন এবং কাপড় ঠিক করলেন ও কথাবার্তা বলেন। পরে আয়েশা (রাঃ) এ ব্যাপারে জিজ্ঞেস করলে রাসূল (ছাঃ) বললেন, ‘আমি কি সেই ব্যক্তিকে লজ্জা করবো না, ফেরেশতারা যাকে লজ্জা করে থাকেন’? (মুসলিম হা/২৪০১; মিশকাত হা/৬০৬০)

Advertisements
This entry was posted in ওছমান বিন আফফান (রাঃ)-কে দেখে ফেরেশতারা কেন লজ্জিত হতেন? and tagged , . Bookmark the permalink.