ঝগড়ার মধ্যে স্বামী তার স্ত্রীকে তার সাথে সংসার করতে দিতে অস্বীকৃতি জানায়। পরবর্তীতে স্ত্রীর ভুল সিদ্ধান্তের কারণে মহল্লার বখাটে ছেলেরা হস্তক্ষেপ করে বিবাহের কাবিন নামা নিয়ে যায় এবং কাযী অফিসের মাধ্যমে তালাক নামা লিখে এনে উভয়ের অসম্মতিতে। এভাবে তালাক বৈধ হয়েছে কি?


প্রশ্নের বিবরণ অনুযায়ী উক্ত তালাক বৈধ হয়নি। কারণ জোর করে বা ভয়-ভীতি দেখিয়ে তালাক হয় না (ইবনু মাজাহ হা/২০৪৩; মিশকাত হা/৬২৮৪; ইরওয়া হা/১০২৭, সনদ ছহীহ)। ইবনু আববাস (রাঃ) বলেন, ‘জোর করে বা অসম্মত ব্যক্তির তালাক বৈধ নয়’ (বায়হাক্বী, সুনানুল কুবরা হা/১৪৮৮১; ইরওয়া হা/২০৪৬; ফাতাওয়া লাজনা দায়েমা ২০/৪২-৪৩)। দ্বিতীয়তঃ এটি তালাক ধরে নিলেও এখানে একটি মাত্র তালাক হয়েছে। যেক্ষেত্রে স্ত্রীকে রাজ‘আতের মাধ্যমে ফিরিয়ে নেওয়ার অধিকার রয়েছে (মুসলিম হা/১৪৭২; আবুদাউদ হা/২২০০)। তবে রাজ‘আত করার নির্ধারিত সময়-সীমা অর্থাৎ ইদ্দতকাল অতিক্রান্ত হওয়ায় নতুন বিবাহের মাধ্যমে উক্ত স্ত্রীকে ফিরিয়ে নিতে পারবে (বাক্বারাহ ২/২৩২; বুখারী হা/৪৫২৯)

Advertisements

About ইসলামী সাইট

কুরআন ও সহীহ হা‌দিস
This entry was posted in তালাক জোর করে দেওয়ালে বৈধ হবে কি? and tagged . Bookmark the permalink.