জনৈক যুবকের যে পরিমাণ সম্পদ আছে, তাতে হজ্জ করা সম্ভব। কিন্তু তার বিবাহেরও বয়স হয়েছে। এক্ষণে কোনটিকে অগ্রাধিকার দেওয়া তার জন্য কর্তব্য হবে?


বিবাহ না করার কারণে গুনাহে লিপ্ত হওয়ার আশংকা করলে প্রথমে বিবাহ করবে। রাসূল (ছাঃ) বলেন, ‘হে যুব সমাজ! তোমাদের মধ্যে যে বিবাহ করতে সক্ষম, সে যেন বিবাহ করে। কেননা বিবাহ চক্ষুকে অবনমিত ও লজ্জাস্থানকে সংযত রাখে’ (মুত্তাফাক্ব আলাইহ, মিশকাত হা/৩০৮০ ‘বিবাহ’ অধ্যায়)। আল্লাহ বলেন, ‘আর তোমাদের মধ্যে যারা বিবাহহীন, তোমরা তাদের বিবাহ সম্পাদন করে দাও। …যদি তারা নিঃস্ব হয়, তবে আল্লাহ নিজ অনুগ্রহে তাদেরকে অভাবমুক্ত করে দিবেন’ (নূর ২৪/৩২)। বিবাহ করায় সমস্যা থাকলে হজ্জ করবে। উল্লেখ্য যে, ‘বিবাহের পূর্বে হজ্জ আবশ্যক’ এবং ‘যে হজ্জ করার পূর্বে বিবাহ করল, সে পাপ দ্বারা শুরু করল’ মর্মে বর্ণিত হাদীছ দু’টি মওযূ বা জাল (আলবানী, সিলসিলা যঈফাহ হা/২২১-২২)

Advertisements
This entry was posted in হজ্জ নাকী বিবাহ আগে করতে হবে? and tagged , . Bookmark the permalink.