ছাহাবায়ে কেরামের নামের শেষে ‘রাযিয়াল্লাহু ‘আনহু’ এবং অন্যান্য ওলামায়ে কেরামের ব্যাপারে ‘রাহেমাহুল্লাহ’, ‘হাফিযাহুল্লাহ’ এগুলি বলা হয় কেন?


এসব বাক্য ছাহাবায়ে কেরামের শানে তাদের জন্য দো‘আ হিসাবে বলা হয়। এগুলি সালাফে ছালেহীনের রীতি। আল্লাহ বলেন, ‘মুহাজির ও আনছারগণের মধ্যে যারা অগ্রবর্তী ও প্রথম দিককার এবং যারা তাদের অনুসরণ করেছে নিষ্ঠার সাথে, আল্লাহ তাদের প্রতি সন্তুষ্ট হয়েছেন এবং তারাও তাঁর প্রতি সন্তষ্ট’ (তওবা ৯/১০০)। উক্ত আয়াতের প্রেক্ষিতে ছাহাবায়ে কেরামের ক্ষেত্রে বিদ্বানগণ ‘রাযিয়াল্লাহ ‘আনহু’ দো‘আটি ব্যবহার করেছেন এবং পরবর্তী ওলামায়ে কেরামের ক্ষেত্রে ‘রাহেমাহুল্লাহ’ (‘আল্লাহ তার উপর অনুগ্রহ করুন’) ব্যবহার করেছেন। অর্থাৎ সবগুলিই বিদ্বানদের নিকটে প্রচলিত দো‘আ (বিস্তারিত দ্রঃ উছায়মীন, ফাতাওয়া নূরুন ‘আলাদ দারব, অডিও টেপ নং ৪১৬)

Advertisements
This entry was posted in ওলামায়ে কেরামের ব্যাপারে ‘রাহেমাহুল্লাহ’ ‘হাফিযাহুল্লাহ’ এগুলি বলা হয় কে, ছাহাবায়ে কেরামের নামের শেষে ‘রাযিয়াল্লাহু ‘আনহু’ বলা হয় কেন? and tagged . Bookmark the permalink.