অন্য কারু শিশু লালন-পালন করলে তাতে কোন নেকী হবে কি? তাদের কোন সম্পদ দেওয়া যাবে কি? এছাড়া জন্মনিবন্ধন বা আইডি কার্ডে তাদের পালক পিতা-মাতার নাম লেখা যাবে কি?


শিশু অসহায়, ইয়াতীম বা দরিদ্র হ’লে তাদের লালন-পালন করায় প্রভূত নেকী রয়েছে। রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) বলেছেন, ‘আমি ও ইয়াতীমের তত্ত্বাবধায়ক, চাই সে ইয়াতীম নিজের বংশের হৌক বা অন্যের হৌক, জান্নাতে এভাবে থাকব। একথা বলে তিনি নিজের শাহাদত ও মধ্যমা আঙ্গুলি দু’টি একত্রিত করে দেখালেন’ (মুসলিম হা/২৯৮৩; মিশকাত হা/৪৯৫২)

মোট সম্পদের এক-তৃতীয়াংশ পর্যন্ত তাদের জন্য অছিয়ত করা যাবে (বুখারী হা/২৭৪২; মুসলিম হা/১৬২৮; মিশকাত হা/৩০৭১৭২)। আর জন্মনিবন্ধন বা আইডি কার্ডে তাদের পালক পিতা-মাতার নাম লেখা যাবে না। বরং প্রকৃত পিতা-মাতার নামই লিখতে হবে। আল্লাহ বলেন, ‘তোমরা তাদেরকে তাদের পিতৃ-পরিচয়ে ডাক; আল্লাহর কাছে এটাই অধিক ইনছাফপূর্ণ (আহযাব ৩৩/০৫)। রাসূল (ছাঃ) বলেন, পিতাকে বাদ দিয়ে অন্যের সাথে যে নিজেকে সম্পৃক্ত করবে তার উপর আল্লাহ, ফেরেশতা ও সকল মানুষের অভিশাপ (মুসলিম হা/১৩৭০; তিরমিযী হা/২১২১)। তবে প্রযত্নে পালক পিতার নাম দেওয়ায় কোন দোষ নেই।

Advertisements
This entry was posted in শিশু অন্য কারু লালন-পালন করলে কোন নেকী হবে কি?. Bookmark the permalink.