কোন কবরস্থান নির্দিষ্ট কোন ব্যক্তি, বংশ বা গ্রামবাসীর জন্য নির্ধারণ করা যাবে কি?


এরূপ করা জায়েয। ইমাম আহমাদ বলেন, ব্যক্তির নিজের জন্য কবরের মাটি কিনে রাখাতে এবং তাতে দাফনের অছিয়ত করায় বাধা নেই (আলমুগনী /৪৪৩)। তবে সাধারণ কবরস্থানে দাফন করা এবং তা সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত রাখাই উত্তম। ব্যক্তিগত স্থানে কবরস্থান করা কয়েকটি কারণে অপসন্দনীয়- (১) এতে দাফনকৃত ব্যক্তি আম জনসাধারণের দো‘আ পাওয়া থেকে বঞ্চিত হয় (২) মৃতের ওয়ারিছরা উক্ত মাটি থেকে বঞ্চিত হয় (৩) ভবিষ্যতে উত্তরাধিকারী বা অন্য কারু দ্বারা প্রয়োজনে জমির খনন কার্য হওয়ার সম্ভাবনা থাকে (৪) এসব কবরকে মানুষ অন্য কবর থেকে পৃথক এবং অধিক সম্মানের মনে করে। বিশেষতঃ নেককার মানুষের কবর হ’লে একসময় সেখানে পূজা হওয়ার সম্ভাবনা থাকে (৫) সর্বোপরি এভাবে নিজের বা নিজেদের জন্য কবরস্থান নির্দিষ্ট করার মাধ্যমে ব্যক্তিগত বা বংশগত বড়ত্ব বা অহংকার ফুটে উঠে। অথচ মৃত্যু মানুষের যাবতীয় অহংকার ধুলিসাৎ করে দেয়।

সেকারণ দেখা যায় যে, মসজিদে নববীর পার্শ্ববর্তী বাক্বী‘ কবরস্থানে হাযার হাযার ছাহাবায়ে কেরামের কবর হ’লেও তার কোন একটি কবর অমুকের বলে নামকরণ নেই। এমনকি ছাহাবীগণের কবরস্থান হিসাবেও তা নির্দিষ্ট করা নেই। সর্বোপরি একটি কবরের উপর আরেকটি কবর দিয়ে আজো পর্যন্ত সেখানে প্রতিদিন বহু মুসলমান কবরস্থ হচ্ছেন।

Advertisements
This entry was posted in কবরস্থান নির্দিষ্ট কোন বংশ বা গ্রামবাসীর জন্য নির্ধারণ করা যাবে কি? and tagged . Bookmark the permalink.