জনৈক ব্যক্তি লক্ষ টাকা ঘুষ দিয়ে নামকাওয়াস্তে পরীক্ষার মাধ্যমে শিক্ষক হিসাবে নিয়োগপ্রাপ্ত হয়েছে। বর্তমানে সে তওবা করতে চায়। স্থায়ীভাবে হারাম ভক্ষণের গুনাহ থেকে বাঁচতে চায়। এক্ষণে তার করণীয় কি?


উক্ত পদে যোগ্য হয়ে থাকলে সে খালেছ নিয়তে তওবা করবে এবং চাকুরীরত থাকবে। কারণ যোগ্য হওয়া সত্ত্বেও যুলুম প্রতিরোধের জন্য বা বাধ্যগত অবস্থায় ঘুষ দিলে সেক্ষেত্রে ঘুষগ্রহীতা পাপের বোঝা বহন করবে, ঘুষদাতা নয় (মুহাল্লা /১১৮ মাসআলা নং ১৬৩৮; মাজমূফাতাওয়া ৩১/২৮৬)

তবে ঘুষ দাতা অযোগ্য হওয়া সত্ত্বেও অন্যের হক নষ্ট করে ঘুষের জোরে চাকুরী নিয়ে থাকলে চাকুরী ছেড়ে দিয়ে আল্লাহর নিকট তওবা করবে। রাসূল (ছাঃ) ঘুষদাতা ও ঘুষগ্রহীতার উপর লা‘নত করেছেন (আবুদাঊদ, মিশকাত হা/৩৭৫৩)

Advertisements
This entry was posted in ঘুষ দিয়ে চাকুরী নিয়ে ভুল বুঝতে পারলে করণীয় কি? and tagged . Bookmark the permalink.