আমাদের মসজিদের ইমাম ছাহেব গত তিন বছর যাবৎ সুষ্ঠুভাবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। কিন্তু এবছর বার্ষিক মাহফিলে তার নির্বাচিত প্রধান বক্তা অসুস্থতার কারণে বক্তব্য দিতে ব্যর্থ হওয়ার ফলে মাহফিল পন্ড হয়ে যায়। এতে মুছল্লীরা তাকে আর ইমামতির দায়িত্বে রাখতে চায়না। এক্ষণে এই সামান্য কারণে ইমাম ছাহেবকে বরখাস্ত করা জায়েয হবে কি?


এরূপ কারণে ইমাম ছাহেবকে বরখাস্ত করা জায়েয হবে না। বরং স্পষ্ট যুলুম হবে। বাহ্যিক দৃষ্টিতে এখানে ইমাম ছাহেব দোষী নন। আর আল্লাহ বলেন, ‘প্রত্যেক ব্যক্তি স্বীয় কৃতকর্মের জন্য দায়ী হবে। কেউ কারু পাপের বোঝা বহন করবে না’ (আন‘আম ৬/১৬৪)। এ ব্যাপারে ইমাম ছাহেব যদি গোপনে কোন কিছু অন্যায় করে থাকেন, তার জন্য তিনি আল্লাহর নিকটে দায়ী হবেন। কিন্তু অপর ভাইয়ের প্রতি সন্দেহ করা ও তার দোষ খুঁজে বের করা মুমিনের বৈশিষ্ট্য নয় (হুজুরাত ৪৯/১২)

This entry was posted in মাহফিল পন্ডের কারনে ইমামকে বরখাস্ত করা ঠিক হবে কি? and tagged . Bookmark the permalink.