মসজিদের বারান্দায় কবর থাকলে উক্ত মসজিদে ছালাত হবে কি? ঢাকার একটি ফৎওয়া বোর্ড উক্ত মসজিদে ছালাত আদায় করা যাবে মর্মে ফৎওয়া দিয়েছে এবং দলীল হিসাবে নিম্নোক্ত হাদীছ পেশ করেছে। রাসূল (ছাঃ) বলেন, ‘সমগ্র যমীনকে আমার জন্য পবিত্র এবং সিজদার স্থান বানিয়ে দেয়া হয়েছে’ (বুখারী হা/৪৩৮)। এর দ্বারা তারা কবরকেও শামিল করেছে।


কবর ও মসজিদের মধ্যে পৃথক দেওয়াল না থাকায় উক্ত মসজিদে ছালাত আদায় থেকে বিরত থাকতে হবে। কারণ রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) বলেছেন, ‘সাবধান! তোমাদের পূর্বে যারা ছিল তারা তাদের নবীগণ ও নেক ব্যক্তিগণের কবর সমূহকে মসজিদে পরিণত করেছিল। সাবধান! তোমরা কবর সমূহকে মসজিদে পরিণত করো না। আমি তোমাদেরকে এ থেকে কঠোরভাবে নিষেধ করছি’ (মুসলিম হা/৫৩২; মিশকাত হা/৭১৩)। তিনি বলেন, ‘আল্লাহর অভিশাপ হৌক ইহূদী ও নাছারাদের প্রতি, তারা তাদের নবীগণের কবর সমূহকে মসজিদে পরিণত করেছে’ (বুখারী হা/১৩৩০; মুসলিম হা/৫২৯; মিশকাত হা/৭১২)। তিনি আরও বলেন, ‘তোমরা কবরের উপর বসো না এবং কবরের দিকে ফিরে ছালাত আদায় করো না’ (মুসলিম হা/৯৭২; মিশকাত হা/১৬৯৮)। অন্য বর্ণনায় এসেছে, তিনি বলেন, তোমরা কবরের দিকে ফিরে এবং কবরের উপরে ছালাত আদায় করো না’ (ছহীহাহ হা/১০১৬)। এক্ষণে উক্ত মসজিদে ছালাত আদায় সন্দেহ মুক্ত ও জায়েয করতে হ’লে কবর ও মসজিদের মধ্যে আলাদা প্রাচীর নির্মাণ করে কবরকে মসজিদ থেকে সম্পূর্ণ পৃথক করতে হবে (উছায়মীন, শারহুল মুমতে/২৫৪শায়খ বিন বায, মাজমূফাতাওয়া ১৩/৩৫৭; ইবনু তায়মিয়াহ, মাজমূফাতাওয়া ১২/৩১)

ঢাকার উক্ত ফৎওয়া ভুল। কেননা রাসূল (ছাঃ) বলেন, ‘কবরস্থান ও গোসলখানা ব্যতীত সমগ্র পৃথিবী ছালাতের স্থান’ (আবুদাঊদ হা/৪৯২; তিরমিযী হা/৩১৭; মিশকাত হা/৭৩৭; ছহীহুল জামেহা/২৭৬৭)

This entry was posted in কবর মসজিদের বারান্দায় থাকলে উক্ত মসজিদে ছালাত হবে কি?, মসজিদের বারান্দায় কবর থাকলে উক্ত মসজিদে ছালাত হবে কি? and tagged , . Bookmark the permalink.