আমার পিতা-মাতা ১৫ বছর যাবৎ ইচ্ছাকৃতভাবে ঋণগ্রস্থ। বিভিন্ন এনজিও থেকে ঋণ নেওয়া তাদের নেশা। বর্তমানে প্রতিমাসে ৫০-৬০ হাযার টাকা কিস্তি শোধ করতে হয়। আমি ও আমার ছোট ভাই সাধ্যমত পরিশোধ করি। তা না করলে তারা আমাদের স্ত্রী-সন্তানদের উপর মানসিক নির্যাতন করে ও বাড়ী থেকে বের করে দিতে চায়। এক্ষণে এ ব্যাপারে আমাদের করণীয় কি?


এমতাবস্থায় পিতা-মাতাকে এরূপ অন্যায়কর্ম থেকে বিরত রাখার জন্য জোরালো পদক্ষেপ নিতে হবে। সূদের ভয়াবহ শাস্তি থেকে তাদেরকে সাবধান করতে হবে। ইমাম ইবনু তায়মিয়াহ (রহঃ) বলেন, প্রয়োজনে তাদেরকে গৃহবন্দী করে রাখতে হবে। আর এক্ষেত্রে পাপ থেকে বাঁচানোই তাদের প্রতি সদ্ব্যবহার হিসাবে গণ্য হবে। তবে তাদের সাথে কোন অন্যায় আচরণ করা যাবে না। বরং তাদের যাবতীয় স্বাভাবিক প্রয়োজন মিটাতে হবে (মাজমূ‘ ফাতাওয়া ৩৪/১৭৮)

This entry was posted in পিতা-মাতা ইচ্ছাকৃতভাবে ঋণগ্রস্থ হলে করণীয় কি? and tagged , . Bookmark the permalink.