জুম‘আর খুৎবায় ইমাম ছাহেব বিদ‘আতপূর্ণ কথা বলেন। একারণে ইচ্ছাকৃতভাবে দেরী করা যাবে কি?


যথাসময়ে মসজিদে উপস্থিত হতে হবে। নতুবা মুছল্লী বহু নেকী থেকে বঞ্চিত হবে (মুত্তাফাক্ব ‘আলাইহ, মিশকাত হা/১৩৮১-৮৪, ১৩৮৮)। প্রয়োজনে যে মসজিদে কুরআন ও ছহীহ সুন্নাহ মোতাবেক খুৎবা হয় সেখানে যেতে হবে। ইবনু তায়মিয়াহ (রহঃ) বলেন, মুছল্লী যদি জানতে পারে যে তার ইমাম এমন বিদ‘আতী, যে বিদ‘আতের পথে আহবান করে। অথবা সে ফাসেকী কাজে লিপ্ত। কিন্তু সে নিয়মিত ইমাম, যার পিছনে ছালাত আদায় করতেই হয়। যেমন জুম‘আ, ঈদায়েন, আরাফার হজ্জের ইমাম ইত্যাদি। এমতাবস্থায় মুছল্লী তার পিছনেই ছালাত আদায় করবে (আল-ফাতাওয়াউল কুবরা ২/৩০৭)। স্বর্তব্য যে, নিরুপায় অবস্থায় বিদ‘আতী ইমামের পিছনে ছালাত আদায় করা জায়েয। রাসূল (ছাঃ) বলেন, ‘অনেকেই তোমাদেরকে ছালাত আদায় করায়। তারা যদি ঠিক করে তাহলে তোমাদের জন্য নেকী রয়েছে। আর তারা যদি ভুল করে, তাতে তোমাদের নেকী হবে আর তাদের গোনাহ হবে’ (বুখারী, মিশকাত হা/১১৩৩)। হাসান বাছরী বলেন, বিদ‘আতীর পিছনে ছালাত আদায় কর। বিদ‘আতের গোনাহ তার উপর বর্তাবে (বুখারী, ‘বিদ‘আতীর ইমামতি’ অনুচ্ছেদ হা/৬৯৫)

This entry was posted in খুৎবায় বিদ‘আতপূর্ণ কথা বলেন। একারণে ইচ্ছাকৃতভাবে দেরী করা যাবে কি? and tagged , , , . Bookmark the permalink.