১টি ছাগল কুরবানী দিলে যে গোশত পাওয়া যায়, তা বড় পরিবারের জন্য যথেষ্ট নয়। এক্ষণে প্রয়োজন মেটানোর জন্য ঈদের পূর্বে গোশত ক্রয় করে রাখা জায়েয হবে কি?


প্রশ্নের সাথে কুরবানীর কোন সম্পর্ক নেই। কারণ এখানে প্রশ্ন হ’ল গোশত বেশী পাওয়ার জন্য। পক্ষান্তরে কুরবানী হ’ল আল্লাহর নৈকট্য হাছিলের মাধ্যম। অতএব সামর্থ্য থাকলে বড় পরিবারের জন্য বড় পশু বা একাধিক পশু কুরবানী দিবে। আল্লাহ বলেন, ‘কুরবানীর পশুর গোশত বা রক্ত আল্লাহর নিকটে পৌঁছে না। বরং তাঁর নিকটে পৌঁছে কেবলমাত্র তোমাদের ‘তাক্বওয়া’ বা আল্লাহভীতি’ (হজ্জ ২২/৩৭)। এখানে গোশতে ঘাটতি পড়ার চিন্তা করা উচিত হবে না। কারণ আল্লাহ কেবল মুত্তাক্বীদের কুরবানী কবুল করে থাকেন (মায়েদাহ ৫/২৭)

This entry was posted in কুরবানী ঈদের পূর্বে গোশত ক্রয় করে রাখা জায়েয হবে কি? and tagged , , , . Bookmark the permalink.