আমার এলাকাটি হানাফী অধ্যুষিত হওয়ায় ঈদের ছালাত অনেক দেরীতে আদায় করা হয়। এক্ষণে আমি আউয়াল ওয়াক্তে একাকী তা আদায় করে নিব কি?


না। কারণ ঈদের ছালাত একাকী আদায় করার বিধান নেই। রাসূল (ছাঃ) বলেন, ছওম সেদিন যেদিন তোমরা সকলে ছিয়াম রাখবে। ঈদুল ফিৎর ও ঈদুল আযহা  সেদিন যেদিন তোমরা সকলে ঈদ করবে (তিরমিযী হা/৭৯৭, ইবনু মাজাহ হা/১৬৬০; ছহীহাহ হা/২২৪)। বরং ঈদের ছালাতের শেষ সময় তথা সূর্য ঢলার পূর্ব পর্যন্ত (আল-মাওসু‘আতুল ফিক্বহিইয়াহ ২৭/২৪৩) দেরীতে হ’লেও জামা‘আতের সাথে আদায় করবে। ঈদুল ফিৎরে সূর্য দুই ‘নেযা’ পরিমাণ উঠার পর রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) ঈদের ছালাত আদায় করতেন। এক ‘নেযা’ বা বর্শার দৈর্ঘ্য হ’ল তিন মিটার বা সাড়ে ছয় হাত (আওনুল মা‘বূদ শরহ সুনানে আবুদাঊদ ৩/৪৮৭; ফিক্বহুস  সুন্নাহ ১/২৩৮ পৃঃ)। আব্দুল্লাহ ইবনে বুসর (রাঃ) একদা লোকদের সাথে ঈদুল ফিতর কিংবা ঈদুল আযহার ছালাতে গেলেন এবং ইমামের দেরী করে ছালাত আদায় করাকে অপসন্দ করলেন। অতঃপর বললেন, নিশ্চয়ই আমরা এ সময়ে ছালাত আদায় শেষ করতাম। আর ছালাত আদায়ের সময় হচ্ছে সূর্য উদিত হওয়ার অল্প কিছুক্ষণ পর (ইবনু মাজাহ হা/১৩১৭; আবুদাঊদ হা/১১৩৫, সনদ ছহীহ; দ্রঃ ‘মাসায়েলে কুরবানী ও আকীকা’ পৃঃ ২৭)

Advertisements
This entry was posted in ঈদের ছালাত আউয়াল ওয়াক্তে একাকী আদায় করা যাবে কি? and tagged . Bookmark the permalink.