বিবাহ করলে পিতা-মাতা থেকে বাসা আলাদা করে নিতে হবে। শরী‘আতে এরূপ কোন নির্দেশনা আছে কি?


না। তবে একাধিক সন্তান থাকলে যৌথ পরিবারে পর্দা পালনে অসুবিধা হয় বলে পৃথক আবাসস্থল থাকাই উত্তম। ছাহাবায়ে কেরামের জীবন পর্যালোচনায় দেখা যায় অনেক ছাহাবীর আমল এরূপই ছিল। যেমন আব্দুল্লাহ বিন আমর বিবাহের পর পৃথক বাড়িতে থাকতেন। পিতা আমর ইবনুল ‘আছ তার বাড়িতে গিয়ে তার স্ত্রীর নিকট থেকে আব্দুল্লাহর খবর নিতেন (বুখারী হা/৫০৫২; নাসাঈ হা/২৩৮৯)। ওমর (রাঃ) ও তাঁর সন্তান আব্দুল্লাহ বিন ওমর (রাঃ) একইভাবে পৃথক অবস্থান করতেন (আব্দুর রাযযাক হা/১৯৮২২; শু‘আবুল ঈমান হা/৬৫৭৯, সনদ ছহীহ)। তবে সেসময় যৌথ পরিবার থাকার বিষয়টিও বর্ণিত হয়েছে। যেমন রাসূল (ছাঃ) শ্বশুর পরিবারের অনিষ্টের ভয়ে ফাতিমা বিনতে কায়েসকে শ্বশুর বাড়িতে ইদ্দত পালন করতে না দিয়ে ইবনু উম্মে মাকতূমের বাড়িতে ইদ্দত পালনের নির্দেশ দেন (আবুদাউদ হা/২২৮৪; ইবনু হিববান হা/৪২৫৩; ইরওয়া হা/১৮০৪)। অতএব এ ব্যাপারে বাড়াবাড়ি না করে মধ্যমপন্থা অবলম্বন করতে হবে।

This entry was posted in বিবাহ করলে পিতা-মাতা থেকে বাসা আলাদা করে নিতে হবে কি? and tagged , . Bookmark the permalink.