কোম্পানীর মালিক আমাকে চুক্তি অনুযায়ী বেতনের চাইতে কম দিত। ফলে আমার কাছে মালিকের যে ক্যাশ থাকত তা থেকে মালিককে না বলে উক্ত টাকা প্রতিমাসে নিয়ে নিতাম। এভাবে আমি পাঁচ বছর চাকুরী শেষে চলে আসি। আমার পক্ষে উক্ত অর্থ ফেরৎ দেয়ার সামর্থ্য নেই। এখন আমার করণীয় কি?


যত টাকা মালিককে না জানিয়ে নেওয়া হয়েছে তা তাকে ফেরত দিতে হবে। অন্যথায় খেয়ানতের দায়ে আল্লাহর দরবারে অপরাধী সাব্যস্ত হ’তে হবে। আল্লাহ বলেন, ‘তোমরা বাতিল পন্থায় অন্যের মাল ভক্ষণ করো না’ (নিসা ৪/২৯)। যদি ফিরিয়ে দেওয়ার সামর্থ্য না থাকে, তবে মালিকের কাছে নিজের ভুল স্বীকার করে সমঝোতার চেষ্টা করবে। মালিক ক্ষমা করলেই তবে ক্ষমা হ’তে পারে, অন্যথায় নয়। অন্যদিকে মালিকও চুক্তি মোতাবেক বেতন না দিয়ে থাকলে তার অন্যায়ের জন্য এবং অন্যের হক নষ্ট করার জন্য আল্লাহর নিকট অপরাধী সাব্যস্ত হবে। রাসূল (ছাঃ) বলেন, সাবধান! কারো ওপর যুলুম করবে না। সাবধান! কোন ব্যক্তির মাল অন্য কারো জন্য হালাল নয়, যতক্ষণ না সে তা স্বেচ্ছায় প্রদান করে’ (আহমাদ হা/২০৭১৪; মিশকাত হা/২৯৪৬; ছহীহুল জামে‘ হা/৭৬৬২)

This entry was posted in বেতনের চাইতে কম দেওয়ায় মালিকের ক্যাশ থেকে টাকা নেওয়া যাবে কি? and tagged . Bookmark the permalink.