জনৈক কলামিস্ট একটি পত্রিকায় লিখেছেন যে, মহানবী (ছাঃ) বলেছেন, ‘তোমরা ধর্মের মূল কাঠামো অক্ষুণ্ণ রেখে তার ব্যবহারিক দিকগুলো অবশ্যই যুগের পরিবর্তনের সঙ্গে তাল মিলিয়ে সংশোধন ও পরিবর্তন করবে’। উক্ত মর্মে সত্যিই কোন হাদীছ আছে কি?


উক্ত মর্মে কোন হাদীছ বর্ণিত হয়নি। তাছাড়া শরী‘আতের কোন স্পষ্ট বিধান পরিবর্তন বা সংশোধন করার কোন সুযোগ নেই। কারণ আল্লাহ বলেন, ‘তোমার প্রতিপালকের কালেমা সত্য ও ন্যায় দ্বারা পূর্ণ। যার পরিবর্তনকারী কেউ নেই’ (আন‘আম ৬/১১৫)। কারণ ইসলামী শরী‘আত পূর্ণাঙ্গ জীবন ব্যবস্থা (মায়েদাহ ৫/৩), যা সর্বকালের জন্য প্রযোজ্য। তবে মু‘আমালাত বা ব্যবহারিক ক্ষেত্রে মূল বিধান ঠিক রেখে ধরণ, উপলক্ষ্য বা উপকরণের পরিবর্তন হ’তে পারে। যেমন আল্লাহ জিহাদের জন্য প্রয়োজনীয় উপকরণ প্রস্ত্তত রাখতে বলেছেন (আনফাল ৮/৬০)। তৎকালীন যুগে তা ছিল ঘোড়া, তরবারী, তীর-বর্শা ইত্যাদি। আজকের যুগে সেটি পরিবর্তিত হ’তে পারে আধুনিক অস্ত্র সমূহ দ্বারা। সুতরাং যুগের সাথে তাল মিলানোর নামে আধুনিক যুগে কতিপয় বুদ্ধিজীবী সূদ, জিহাদ, মহিলাদের পর্দা, ইসলামের হুদূদ, পারিবারিক আইন প্রভৃতি শারঈ বিধান সমূহ পরিবর্তনের জন্য যে প্রস্তাব পেশ করে থাকেন তা একান্তই অজ্ঞতাপ্রসূত এবং কুফরীর পর্যায়ভুক্ত। কোন ঈমানদার মুসলমানদের জন্য এরূপ চিন্তাধারা থেকে বেঁচে থাকা আবশ্যক।

This entry was posted in ধর্মের মূল কাঠামো অক্ষুণ্ণ রেখে পরিবর্তন করা যাবে কি? and tagged , . Bookmark the permalink.