কাদিয়ানীদের বই-পুস্তক পাঠ করা যাবে কি?


সাধারণ মানুষের জন্য কাদিয়ানীদের বই-পুস্ত্তক ও তাফসীর পাঠ করা জায়েয নয়। কারণ এতে আক্বীদা নষ্ট হয়ে পথভ্রষ্ট হওয়ার সমূহ সম্ভবনা রয়েছে। একবার ওমর (রাঃ)-এর হাতে তাওরাতের একটি অংশ দেখে রাসূল (ছাঃ) রেগে গিয়ে তাঁকে ধমক দিয়ে বলেছিলেন, ‘হে খাত্ত্বাবের ছেলে! তোমার কি সন্দেহ রয়েছে? আল্লাহর কসম! আমি তোমাদের কাছে একটি অতি উজ্জ্বল ও স্বচ্ছ দ্বীন নিয়ে এসেছি। মূসা (আঃ)-ও যদি আজ দুনিয়ায় বেঁচে থাকতেন, আমার অনুসরণ ব্যতীত তাঁর কোন গত্যন্তর ছিল না’ (আহমাদ হা/১৫১৫৬; মিশকাত হা/১৭৭; ইরওয়া হা/১৫৮৯)। তবে যারা শারঈ বিষয়ে দক্ষ ও অভিজ্ঞ, তারা কেবল পথভ্রষ্টদের মিথ্যাচারের মুখোশ উন্মোচনের জন্য তাদের বই-পুস্ত্তক পড়তে পারে (মাতালিবু উলিন নুহা ১/৬০৭)

This entry was posted in কাদিয়ানীদের বই-পুস্তক পাঠ করা যাবে কি? and tagged . Bookmark the permalink.