দশ বছরের সন্তান থাকা সত্ত্বেও স্ত্রী পরপুরুষের সাথে অবৈধ সম্পর্কে লিপ্ত হওয়ায় স্বামী তাকে তালাক দেয়। উক্ত মহিলাও তার স্বামীর কাছে ফিরে যেতে চায় না। এমতাবস্থায় পরবর্তীতে সম্পর্ক করা ঐ ব্যক্তির সাথে বিবাহ করায় কোন বাধা আছে কি?


বাধা নেই। ওলীর অনুমতিক্রমে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হ’তে পারবে। আবুবকর (রাঃ)-এর আমলে দু’জন নারী-পুরুষ যেনায় লিপ্ত হ’লে তাদের একশ’ বেত্রাঘাত করে বিবাহ দিয়ে দেওয়া হয়। ইবনু আববাস (রাঃ)-কে এই বিষয়ে জিজ্ঞেস করা হ’লে তিনি বলেন, প্রথমটি ছিল ব্যভিচার আর দ্বিতীয়টি বিবাহ। অতএব ব্যভিচার বিবাহকে হারাম করতে পারে না। ইবনু ওমর ও ইবনু মাসঊদ (রাঃ) থেকেও অনুরূপ বর্ণনা রয়েছে (বায়হাক্বী হা/১৪২৪৯; কুরতুবী, তাফসীর সূরা নূর ৩ আয়াত)। তবে শর্ত হ’ল যদি নারীর সাথে অবৈধ মিলন হয়ে থাকে। তাহ’লে তাকে তওবা করতে হবে এবং এক হায়েয পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। কারণ রাসূল (ছাঃ) বলেন, ‘কোন গর্ভবতী বন্দিনীর সাথে তার সন্তান প্রসবের আগে এবং কোন মহিলার সাথে তার হায়েয হ’তে পবিত্র হওয়ার পূর্বে সহবাস করবে না’ (আবুদাউদ হা/২১৫৭; মিশকাত হা/৩৩৩৮; আহমাদ হা/১১৮৪১, সনদ ছহীহ)

This entry was posted in বিবাহ অবৈধ সম্পর্ককারীর সাথে করতে পারবে কি? and tagged , , . Bookmark the permalink.