Category Archives: তাফসীর

সূরা রহমানের ১৭ আয়াতের ব্যাখ্যা জানতে চাই।


আয়াতটির অর্থ : তিনি (আল্লাহ) দুই পূর্ব ও দুই পশ্চিমের রব (রহমান ৫৫/১৭)। মুজাহিদ বলেন, দুই পূর্ব বলতে গ্রীষ্ম ও শীতকালের দুই উদয়াচল এবং দুই পশ্চিম বলতে গ্রীষ্ম ও শীতকালের দুই অস্তাচলকে বুঝানো হয়েছে (তাফসীরে ত্বাবারী ২৩/২৭-২৮; তাফসীরে ইবনু কাছীর)। এখানে দ্বিবচন … Continue reading

Posted in তাফসীর, সূরা রহমানের ১৭ আয়াতের ব্যাখ্যা জানতে চাই। | Tagged

সূরা মায়েদাহ ১০৩ আয়াতের ব্যাখ্যা জানতে চাই। এখানে আল্লাহ যে চারটি পশু নিষিদ্ধ করেছেন সেগুলির পরিচয় কি?


উক্ত আয়াতের অর্থ : আল্লাহ বাহীরাহ, সায়েবাহ, অছীলাহ ও হামী-র প্রচলন করেননি। বরং কাফেররাই এ ব্যাপারে আল্লাহর উপর মিথ্যারোপ করেছে মাত্র। আর তাদের অধিকাংশই কোন জ্ঞান রাখে না (মায়েদাহ ৫/১০৩)। আয়াতে বর্ণিত চারটি পরিভাষা চার প্রকারের পশুর নামে প্রচলিত। যেগুলিকে জাহেলী … Continue reading

Posted in আল্লাহ যে চারটি পশু নিষিদ্ধ করেছেন সেগুলির পরিচয় কি?, তাফসীর, সূরা মায়েদাহ ১০৩ আয়াতের ব্যাখ্যা জানতে চাই। | Tagged

সূরা বাক্বারাহ ১১৫ আয়াতের সঠিক অর্থ জানতে চাই।


উক্ত আয়াতের অর্থ হল, ‘আর আল্লাহর জন্যই পূর্ব ও পশ্চিম। অতএব যেদিকেই তোমরা মুখ ফিরাও সেদিকেই রয়েছে আল্লাহর চেহারা। নিশ্চয়ই আল্লাহ সর্বব্যাপী ও সর্বজ্ঞ’। উল্লেখ্য যে, তাফসীর মা‘আরেফুল কুরআনের বঙ্গানুবাদে বলা হয়েছে, ‘তোমরা যেদিকেই মুখ ফেরাও সেদিকেই আল্লাহ বিরাজমান’। আল্লাহ … Continue reading

Posted in তাফসীর, সূরা বাক্বারাহ ১১৫ আয়াতের সঠিক অর্থ জানতে চাই। | Tagged

সূরা তওবা ১১ ও ৮৪ নং আয়াতের ব্যাখ্যা জানতে চাই।


সূরা তওবা ১১ আয়াতের অর্থ হ’ল- এক্ষণে যদি ওরা তওবা করে এবং ছালাত কায়েম করে ও যাকাত আদায় করে, তাহ’লে ওরা তোমাদের দ্বীনী ভাই। আর আমরা জ্ঞানী লোকদের জন্য আয়াত সমূহ বিশদভাবে ব্যাখ্যা করে থাকি’ (তওবা ৯/১১)। ইবনু কাছীর (রহঃ) … Continue reading

Posted in তাফসীর, সূরা তওবা ১১ ও ৮৪ নং আয়াতের ব্যাখ্যা জানতে চাই। | Tagged

সূরা বাক্বারাহ ১৪৮ আয়াতের ব্যাখ্যা জানতে চাই।


আয়াতটির অর্থ হ’ল, আর প্রত্যেক ধর্মীয় সম্প্রদায়ের জন্য রয়েছে পৃথক ক্বিবলা, যেদিকে তারা উপাসনাকালে মুখ করে থাকে। কাজেই দ্রুত সৎকর্ম সমূহের দিকে এগিয়ে যাও (অর্থাৎ কা‘বামুখী হও)। যেখানেই তোমরা থাক না কেন, আল্লাহ তোমাদের সকলকে সমবেত করবেন। নিশ্চয়ই আল্লাহ সকল … Continue reading

Posted in তাফসীর, সূরা বাক্বারাহ ১৪৮ আয়াতের ব্যাখ্যা জানতে চাই। | Tagged

সূরা ফজর ২ আয়াতের ব্যাখ্যা জানতে চাই।


আয়াতটির অর্থ হ’ল- আর ‘শপথ দশ রাত্রির’। ইবনু আববাস, ইবনু যুবায়ের, মুজাহিদ, সুদ্দী, কালবী প্রমুখ বিগত ও পরবর্তী যুগের অধিকাংশ বিদ্বান এর দ্বারা যুলহিজ্জাহর প্রথম দশদিন অর্থ নিয়েছেন। তবে কেউ কেউ রামাযানের শেষ দশকের কথাও বলেছেন। রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) বলেন, ‘এই … Continue reading

Posted in তাফসীর, সূরা ফজর ২ আয়াতের ব্যাখ্যা:

সূরা আর রহমানে দুই উদয়াচল ও দুই অস্তাচল বলতে কি বুঝানো হয়েছে?


এর দ্বারা গ্রীষ্মকাল ও শীতকালে পৃথক দু’টি করে উদয়াচল ও অস্তাচল বুঝানো হয়েছে। অন্য আয়াতে ‘বহু পূর্বের ও পশ্চিমের রব’ (মা‘আরেজ ৭০/৪০) বলা হয়েছে। এর দ্বারা সূর্যের সদা পরিবর্তনশীল উদয়াচল ও অস্তাচলের কথা বলা হয়েছে। কেননা সূর্য নিজের কক্ষপথে সদা … Continue reading

Posted in তাফসীর, সূরা আর রহমানে দুই উদয়াচল ও দুই অস্তাচল বলতে কি বুঝানো হয়েছে?

সূরা আর রহমানে দুই উদয়াচল ও দুই অস্তাচল বলতে কি বুঝানো হয়েছে?


এর দ্বারা গ্রীষ্মকাল ও শীতকালে পৃথক দু’টি করে উদয়াচল ও অস্তাচল বুঝানো হয়েছে। অন্য আয়াতে ‘বহু পূর্বের ও পশ্চিমের রব’ (মা‘আরেজ ৭০/৪০) বলা হয়েছে। এর দ্বারা সূর্যের সদা পরিবর্তনশীল উদয়াচল ও অস্তাচলের কথা বলা হয়েছে। কেননা সূর্য নিজের কক্ষপথে সদা … Continue reading

Posted in তাফসীর, সূরা আর রহমানে দুই উদয়াচল ও দুই অস্তাচল বলতে কি বুঝানো হয়েছে?

সূরা হিজরের ৮৭ আয়াতের ব্যাখ্যা জানতে চাই।


অত্র আয়াতে সূরা ফাতিহাকেই মহান কুরআন বলা হয়েছে (ইবনু কাছীর, কুরতূবী উক্ত আয়াতের তাফসীর দ্রঃ)। এর মাধ্যমে সূরা ফাতিহার উচ্চ মর্যাদা বর্ণিত হয়েছে। কারণ আস-সাবউল মাছানী সূরা ফাতিহার একটি নাম (তিরমিযী হা/৩১২৪; আবুদাঊদ হা/১৩১)। এছাড়া রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) বলেন, ‘সূরা ফাতিহা … Continue reading

Posted in তাফসীর, সূরা হিজরের ৮৭ আয়াতের ব্যাখ্যাঃ

সূরা বাক্বারাহ ১১৫ নং আয়াতের ব্যাখ্যা জানিয়ে বাধিত করবেন।


অত্র আয়াতে আল্লাহ বলেন, আর আল্লাহর জন্যই পূর্ব ও পশ্চিম। অতএব যেদিকেই তোমরা মুখ ফিরাও না কেন সেদিকেই রয়েছে আল্লাহর চেহারা। নিশ্চয়ই আল্লাহ সর্বব্যাপী ও সর্বজ্ঞ। কোন কোন বিদ্বান বলেছেন যে, ১৬/১৭ মাস বায়তুল মুক্বাদ্দাসের দিকে ফিরে ছালাত আদায়ের পর … Continue reading

Posted in তাফসীর, সূরা বাক্বারাহ ১১৫ নং আয়াতের ব্যাখ্যাঃ

সূরা কাওছার -এর তাফসীর


সূরা কাওছার (হাউয কাওছার) সূরা তাকাছুর-এর পরে মক্কায় অবতীর্ণ। সূরা ১০৮, আয়াত ৩, শব্দ ১০, বর্ণ ৪২। بِسْمِ اللہِ الرَّحْمٰنِ الرَّحِیْمِ পরম করুণাময় অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে (শুরু করছি)। (১) নিশ্চয়ই আমরা তোমাকে ‘কাওছার’ দান করেছি إِنَّا أَعْطَيْنَاكَ الْكَوْثَرَ (২) … Continue reading

Posted in তাফসীর | Tagged | Leave a comment

সূরা ইবরাহীমের ২৪ নং আয়াতের তাফসীর


অনুবাদ : ‘আপনি কি দেখেননি আল্লাহ কিভাবে উপমা দিয়ে থাকেন? পবিত্র বাক্যের তুলনা উৎকৃষ্ট বৃক্ষের মত, যার মূল সুদৃঢ় ও শাখা-প্রশাখা ঊর্ধ্বে বিস্তৃত’ (ইবরাহীম ২৪)। অত্র আয়াতে বর্ণিত كَلِمَةً طَيِّبَةً অর্থ ইবনু আববাস (রাঃ) বলেন, ‘লা ইলা-হা ইল্লাল্লাহ’ (তাফসীর ইবনে … Continue reading

Posted in তাফসীর, সূরা ইবরাহীমের ২৪ নং আয়াতের তাফসীর | Leave a comment

তিনি সর্বদা কোন না কোন কাজে রত আছেন (রহমান ২৯)। হে মানুষ ও জিন! আমি শীঘ্রই তোমাদের জন্য কর্ম মুক্ত হব (রহমান ৩১)। উক্ত আয়াতদ্বয়ের ব্যাখ্যা জানতে চাই।


হযরত আবুদ্দারদা (রাঃ) বলেন, রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) এরশাদ করেছেন যে, كُلَّ يَوْمٍ هُوَ فِيْ شَأْنٍ ‘আল্লাহ সর্বদা মহান কর্মে ব্যস্ত’ (রহমান ২৯)-এর ব্যাখ্যা এই যে, তিনি সর্বক্ষণ কারু পাপ ক্ষমা করছেন, কারু বিপদ সরিয়ে দিচ্ছেন, কাউকে উচ্চ সম্মানিত করছেন, কাউকে অপদস্থ … Continue reading

Posted in তাফসীর, হে মানুষ ও জিন! আমি শীঘ্রই তোমাদের জন্য কর্ম মুক্ত হব (রহমান ৩১)। ব্যাখ্যা | Tagged , | Leave a comment

সূরা কাফেরূন -এর তাফসীর


সূরা কাফেরূন (ইসলামে অবিশ্বাসীগণ) সূরা মা‘ঊন-এর পরে মক্কায় অবতীর্ণ। সূরা ১০৯, আয়াত ৬, শব্দ ২৭, বর্ণ ৯৫। بِسْمِ اللہِ الرَّحْمٰنِ الرَّحِیْمِ পরম করুণাময় অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে (শুরু করছি)। (১) তুমি বল! হে অবিশ্বাসীগণ! قُلْ يَا أَيُّهَا الْكَافِرُونَ (২) আমি … Continue reading

Posted in তাফসীর, সূরা কাফেরূন -এর তাফসীর | Tagged | Leave a comment

সূরা আ‘রাফ ১৯০ আয়াতের তাফসীর


অনুবাদ : ‘যখন তিনি তাদের উভয়কে একটি সুঠামদেহী সন্তান দান করেন, তখন তাদেরকে যা কিছু দেয়া হয়েছে তাতে তারা অন্যদেরকে আল্লাহ্র শরীক বানিয়ে নেয়। অথচ যাদেরকে তারা শরীক বানায়, তাদের থেকে আল্লাহ অনেক ঊর্ধ্বে’। এখানে ‘উভয়কে’ অর্থ মুশরিক দম্পতি। উল্লেখ্য … Continue reading

Posted in তাফসীর, সূরা আ‘রাফ ১৯০ আয়াতের তাফসীর | Leave a comment

সূরা নিসা ১১৭ নং আয়াতের ব্যাখ্যা


অনুবাদ : ‘তারা (মক্কার মুশরিকরা) আল্লাহ্কে ছেড়ে শুধু কতকগুলো দেবীরই পূজা করে, তারা কেবল আল্লাহদ্রোহী শয়তানের পূজা করে (নিসা ১১৭)। এ আয়াতে বর্ণিত ‘ইনাছা’ শব্দের ব্যাখ্যায় ছাহাবী উবাই ইবনু কা‘ব (রাঃ) বলেন, مَعَ كُلِّ صَنَمٍ جِنِّيَّةٌ প্রত্যেক মূর্তির সাথে একজন … Continue reading

Posted in তাফসীর, সূরা নিসা ১১৭ নং আয়াতের ব্যাখ্যা | Tagged , | Leave a comment

জনৈক আলেম সূরা মায়েদাহ ৩৩ আয়াত এবং আবুদাঊদ হা/৪৩৫৩ উল্লেখ করে ৪ প্রকার দন্ডের কথা উল্লেখ করেন। আমরা জানি মুরতাদের শাস্তি কেবল মৃত্যুদন্ড। এক্ষণে এ ব্যাপারে সমাধান ‌কি?


মুরতাদের জন্য একমাত্র শাস্তি হ’ল মৃত্যুদন্ড। রাসূল (ছাঃ)-এর বলেন, مَنْ بَدَّلَ دِينَهُ فَاقْتُلُوهُ ‘যে ব্যক্তি স্বীয় দ্বীনকে পরিবর্তন করল, তাকে হত্যা কর (বুখারী হা/৩০১৭, মুসলিম হা/১৭৭৬; মিশকাত হা/৩৫৩৩)। তবে অবশ্যই তা ক্ষমতাপ্রাপ্ত ইসলামী রাষ্ট্রীয় আদালতের মাধ্যমেই বাস্তবায়ন হবে। যে কেউ … Continue reading

Posted in তাফসীর, মুরতাদের শাস্তি কেবল মৃত্যুদন্ড কি?, সূরা মায়েদাহ ৩৩ আয়াত এর ব্যাখ্যা | Leave a comment

সূরা ইখলাছ এর তাফসীর


সূরা ইখলাছ (বিশুদ্ধ করণ) মক্কায় অবতীর্ণ। সূরা ১১২, আয়াত ৪, শব্দ ১৫, বর্ণ ৪৭। بِسْمِ اللہِ الرَّحْمٰنِ الرَّحِیْمِ পরম করুণাময় অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে (শুরু করছি)। (১) বল, তিনি আল্লাহ এক قُلْ هُوَ اللَّهُ أَحَدٌ (২) আল্লাহ মুখাপেক্ষীহীন اللَّهُ الصَّمَدُ … Continue reading

Posted in তাফসীর | Tagged | Leave a comment