Tag Archives: আযান

সাহারীর আযান কি শুধু রামাযান মাসে না সারা বছর দেওয়া যাবে?


রাসূলুল্লাহ (ছাঃ)-এর যামানায় বিলাল (রাঃ) সাহারীর আযান দিতেন এবং আব্দুল্লাহ ইবনু উম্মে মাকতূম (রাঃ) ফজরের আযান দিতেন। রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) বলেন, ‘তোমরা বিলালের আযান শুনে খাও, যতক্ষণ না ইবনু উম্মে মাকতূমের আযান শুনতে না পাও’ (মুত্তাফাক্ব ‘আলাইহ, মিশকাত হা/৬৮০)। এক্ষণে কোন মহল্লায় … Continue reading

Posted in সাহারীর আযান কি শুধু রামাযান মাসে না সারা বছর দেওয়া যাবে? | Tagged

আযানের দো‘আয় এক স্থানে অসীলা শব্দের ব্যবহার হয়েছে। এক্ষণে ওয়াসীলা শব্দের অর্থ কি?


আযানের দো‘আয় বর্ণিত অসীলা দ্বারা জান্নাতের সুউচ্চ মর্যাদাপূর্ণ স্থানকে বুঝানো হয়েছে। অর্থাৎ রাসূলের জন্য সে সুউচ্চ মর্যাদাকে চাইতে বলা হয়েছে। যেমন অন্য হাদীছে আছে, রাসূল (ছাঃ) ছাহাবীগণকে বললেন, ‘তোমরা আমার জন্যে আল্লাহর কাছে অসীলা প্রার্থনা করবে। কেননা অসীলা জান্নাতের একটি … Continue reading

Posted in ওয়াসীলা শব্দের অর্থ কি? | Tagged ,

ওয়াক্ত শুরুর পূর্বে আযান দেওয়া বৈধ হবে কি?


কোন ছালাতের জন্য সময়ের পূর্বে আযান দেওয়া শরী‘আত সম্মত নয়। কেউ এরূপ করে ছালাত আদায় করলে তাকে পুনরায় আযান দিয়ে ছালাত আদায় করতে হবে (আবুদাউদ হা/৫৩২-৫৩৩; ইবনু কুদামা, মুগনী ১/২৯৭)। তবে ফজরের পূর্বে সাহারী বা তাহাজ্জুদের জন্য আযান দেওয়া যাবে (বুখারী হা/৬১৭; … Continue reading

Posted in আযান ওয়াক্ত শুরুর পূর্বে দেওয়া বৈধ হবে কি? | Tagged

আযান দেওয়ার সময় কানে হাত রাখলেই চলবে না ছিদ্রের মধ্যে আঙ্গুল ঢুকিয়ে দিতে হবে?


কানের মধ্যে আঙ্গুল ঢুকিয়ে দিতে হবে। এসময় মাথা ঘুরবে, দেহ নয়। আবু জুহায়ফা (রাঃ) বলেন, আমি বেলাল (রাঃ)-কে আযান দিতে দেখলাম এবং তাকে মুখ ঘুরাতে দেখলাম। এসময় তার (দুই হাতের) দুই আঙ্গুল উভয় কানের মধ্যে ছিল (তিরমিযী হা/১৯৭; ইরওয়া হা/২৩০)।

Posted in আযান দেওয়ার সময় কানে হাত রাখলেই চলবে না ছিদ্রের মধ্যে আঙ্গুল ঢুকিয়ে দিতে হব | Tagged

মুওয়াযযিনের আযান ও ইক্বামতের জবাব দেওয়া ও পরবর্তী দো‘আসমূহ পাঠ করার ফযীলত কি?


রাসূল (ছাঃ) আযান ও ইক্বামতের জবাব এবং আযান পরবর্তী দো‘আ পাঠের অনেক ফযীলত বর্ণনা করেছেন। যেমন তিনি বলেন, ‘যে ব্যক্তি মুওয়ায্যিনের পিছে পিছে আযানের বাক্যগুলি অন্তর থেকে পাঠ করে…, সে ব্যক্তি জান্নাতে প্রবেশ করবে’ (মুসলিম হা/৩৮৫; মিশকাত হা/৬৫৮, ৬৭৬)। অন্যত্র তিনি … Continue reading

Posted in আযান ও ইক্বামতের জবাব দেওয়ার ফযীলত কি? | Tagged

ইমাম ছালাত শুরু করার পূর্বে ভুলবশতঃ নিজেই ইক্বামত দিয়েছেন। এজন্য মুক্তাদীদের মধ্যে কাউকে পুনরায় ইক্বামত দিতে হবে কি?


ইমাম ইক্বামত দেওয়ায় কোন দোষ নেই। যে কেউ ইক্বামত দিতে পারে। আর আযান দাতাকেই ইক্বামত দিতে হবে মর্মে বর্ণিত হাদীছটি যঈফ (তিরমিযী হা/১৯৯; মিশকাত হা/৬৪৮; যঈফাহ হা/৩৫)।

Posted in আযান দাতাকেই ইক্বামত দিতে হবে কি? | Tagged ,

আমাদের এখানে বর্তমানে যোহরের ছালাতের সময় হয় ১২ টা ৫ মিনিটে। কিন্তু আশপাশের আহলেহাদীছ, হানাফী সব মসজিদে ১টা থেকে ১টা ৩০ এর মধ্যে ছালাত হয়। এক্ষণে আমার জন্য বাড়ীতে ছালাত আদায় করে নিতে হবে কি?


না। মসজিদে জামা‘আতের সাথে ছালাত আদায় করতে হবে। আউয়াল ওয়াক্ত বলতে ওয়াক্তের শুরুকে বুঝানো হয় না। বরং ওয়াক্তের প্রথমভাগকে বুঝানো হয়। জিবরীল (আঃ) রাসূলুল্লাহ (ছাঃ)-কে আউয়াল ও আখেরী ওয়াক্তে দু’দিন ছালাত আদায় করে বলেন, উক্ত দুই ওয়াক্তের মধ্যবর্তী সময়কালই হ’ল … Continue reading

Posted in আযান দেরিতে দিলে বাড়ীতে ছালাত আদায় করে নিতে হবে কি? | Tagged ,

ফজরের আযানের কতক্ষণ পূর্বে সাহারীর আযান দিতে হবে?


উভয় সময়ের মধ্যে এমন পার্থক্য থাকবে, যাতে একজন ব্যক্তি সহজে ফজরের আযানের পূর্বে প্রয়োজনে রান্না ও খাদ্য গ্রহণ সম্পন্ন করতে পারে। তা একঘণ্টা বা তার কিছু কমবেশী হ’তে পারে। যাতে মানুষ বুঝতে পারে যে ফজরের সময় ঘনিয়ে এসেছে। রাসূলুল্লাহ (ছাঃ)-এর … Continue reading

Posted in সাহারীর ফজরের আযানের কতক্ষণ পূর্বে আযান দিতে হবে? | Tagged ,

আমাদের মসজিদে আযানের পূর্বে মাইকে ‘আছ-ছালাতু আস-সালামু আলায়কা ইয়া রাসুলাল্লাহ’ ইত্যাদি পাঠ করে তারপর আযান দেওয়া হয়। ইমাম ছাহেবের বক্তব্য এগুলি পড়লে নেকী না পড়লে গুনাহ নেই। এক্ষণে এসব বলা যাবে কি?


বলা যাবে না। কারণ এগুলি বিদ‘আতী রেওয়াজ মাত্র। শরী‘আতে এর কোন ভিত্তি নেই। শুধু ফজর নয়, কোন আযানের পূর্বেই দরূদ পাঠ, কুরআন পাঠ বা আহবানসূচক অন্য কিছু পাঠ করা বা বক্তব্য রাখা কিছুরই কোন ভিত্তি নেই। ইসলামের স্বর্ণযুগে এগুলির কোন … Continue reading

Posted in আযানের পূর্বে কোনো কিছু পাঠ করে আযান দেওয়া যাবে কি? | Tagged

আযান ও ইক্বামতের মধ্যবর্তী সময়ে দো‘আ করার বিশেষ কোন ফযীলত আছে কি?


আছে। রাসূল (ছাঃ) বলেছেন, আযান ও ইক্বামতের মধ্যবর্তী সময়ের দো‘আ ফেরত দেয়া হয় না। অতএব তোমরা এসময় দো‘আ কর (আহমাদ হা/১২৬০৬; তিরমিযী হা/২১২; মিশকাত হা/৬৭১)। তিনি বলেন, যখন ছালাতের আযান দেওয়া হয়, তখন আকাশের দরজাসমূহ খুলে দেওয়া হয় এবং দো‘আ কবূল করা … Continue reading

Posted in আযান ও ইক্বামতের মধ্যবর্তী সময়ে দো‘আ করার বিশেষ কোন ফযীলত আছে কি? | Tagged ,

আযানের পর পঠিতব্য ছহীহ এবং জাল-যঈফ দো‘আ সমূহ কি কি?


বিশুদ্ধ নিয়ম হ’ল, আযানের জওয়াব দান শেষে প্রথমে দরূদ পড়বে (মুসলিম, মিশকাত হা/৬৫৭)। অতঃপর আযানের দো‘আ পড়বে ‘আল্লা-হুম্মা রববা হা-যিহিদ দা‘ওয়াতিত তা-ম্মাহ, ওয়াছ ছলা-তিল ক্বা-য়িমাহ, আ-তি মুহাম্মাদানিল ওয়াসীলাতা ওয়াল ফাযীলাহ, ওয়াব‘আছ্হু মাক্বা-মাম মাহমূদানিল্লাযী ওয়া‘আদ্তাহ’। রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) এরশাদ করেন ‘যে ব্যক্তি … Continue reading

Posted in আযানের পর পঠিতব্য ছহীহ এবং জাল-যঈফ দো‘আ সমূহ কি কি? | Tagged ,

ফজরের ছালাতের আযানের পর মসজিদ সংলগ্ন ঘুমন্ত মুছল্লীদের জামা‘আতে আসার জন্য ডাকা যাবে কি?


আযানের পর সরবে ডাকাডাকি করা যাবে না। একে ইবনু ওমর (রাঃ) বিদ‘আত বলেছেন (আবুদাউদ হা/৫৩৮; ইরওয়া হা/২৩৬, সনদ হাসান)। তবে ব্যক্তিগতভাবে একে অপরকে ডেকে দেওয়ায় কোন বাধা নেই। আল্লাহ তা‘আলা বলেন, ‘আর তুমি তোমার পরিবারকে ছালাতের আদেশ দাও এবং তুমি … Continue reading

Posted in আযানের পর ঘুমন্ত মুছল্লীদের জামা‘আতে আসার জন্য ডাকা যাবে কি? | Tagged ,

নববী যুগের ন্যায় ছাদে না দাঁড়িয়ে মাইকের মাধ্যমে আযান দেওয়া যদি বিদ‘আত না হয়, তবে তাসবীহ গণনার ক্ষেত্রে কোন যন্ত্র বা তাসবীহ দানা ব্যবহার করা নিষেধ হওয়ার কারণ কি?


আযানের মূল উদ্দেশ্য লোকদের কাছে ছালাতের আহবান পৌঁছানো। সেকারণ রাসূল (ছাঃ) উঁচু কণ্ঠস্বরের অধিকারী হওয়ায় বেলাল (রাঃ)-কে আযানের দায়িত্ব দিয়েছিলেন (আবুদাউদ হা/৪৯৯; ইবনু মাজাহ হা/৭০৬; মিশকাত হা/৬৫০, সনদ ছহীহ)। একই উদ্দেশ্যে সেসময় মসজিদের বাইরে কোন উঁচু স্থানে দাঁড়িয়ে আযান দেওয়া হ’ত (আবুদাঊদ … Continue reading

Posted in আযান মাইকে যদি বিদ‘আত না কেনো?, তাসবীহ দানা ব্যবহার করা নিষেধ হওয়ার কারণ কি? | Tagged , ,

রাসূল (ছাঃ) কি কখনো আযান দিয়েছেন? না দিলে তার কারণ কি?


রাসূল (ছাঃ)-এর আযান দেওয়ার ব্যাপারে কোন ছহীহ বর্ণনা পাওয়া যায় না। একবার সফরে তিনি আযান দিয়েছিলেন মর্মে বর্ণিত হাদীছটি যঈফ (তিরমিযী হা/৪১১; আহমাদ হা/১৭৬০৯; যঈফাহ হা/৬৪৩৪)। রাসূল (ছাঃ) এমনকি খোলাফায়ে রাশেদীন আযান না দেওয়ার বহু কারণ রয়েছে। যেমন (১) রাসূল (ছাঃ) … Continue reading

Posted in আযান রাসূল (ছাঃ) কি কখনো দিয়েছেন? না দিলে তার কারণ কি? | Tagged

‘আছ-ছালাতু খায়রুম মিনান নাওম’ অংশটুকু কি আযান প্রচলনের শুরু থেকেই ফজরের আযানের সাথে যুক্ত ছিল, না পরবর্তীতে যুক্ত হয়েছে?


এটা পরবর্তীতে যুক্ত হয়েছে। বেলাল (রাঃ) হ’তে বর্ণিত, একদা তিনি ফজরের আযান দেওয়ার জন্য রাসূল (ছাঃ)-এর নিকটে আসলেন। তাকে বলা হ’ল যে, তিনি ঘুমিয়ে আছেন। তখন বেলাল (রাঃ) বললেন,الصَّلاَةُ خَيْرٌ مِنَ النَّوْمِ (ঘুম থেকে ছালাত উত্তম)। অতঃপর এই শব্দাবলী ফজরের আযানের … Continue reading

Posted in আযানে কখন থেকে আছ-ছালাতু খায়রুম মিনান নাওম যুক্ত হয়েছে? | Tagged

যিনি আযান দিবেন তার জন্য ইক্বামত দেওয়া যরূরী কি? অন্য কেউ ইক্বামত দিতে গেলে আযান দাতার অনুমতি লাগবে কি?


আযান দাতার জন্য ইক্বামত দেওয়া যরূরী নয়। এ মর্মে বর্ণিত হাদীছটি যঈফ (তিরমিযী হা/১৯৯; মিশকাত হা/৬৪৮; যঈফাহ হা/৩৫)। অতএব শৃংখলাগত কোন সমস্যা না থাকলে যে কেউ ইক্বামত দিতে পারে। সেক্ষেত্রে নির্ধারিত মুওয়াযযিনের অনুমতির প্রয়োজন নেই।

Posted in আযান যিনি দিবেন তার জন্য ইক্বামত দেওয়া যরূরী কি? | Tagged

ফজরের আযানের পূর্বে মানুষকে জাগিয়ে দেওয়ার জন্য মসজিদের মাইকে কুরআন তেলাওয়াত, দো‘আ বা ইসলামী গান গাওয়া যাবে কি?


ফজরের আযানের পূর্বে আযান ব্যতীত সকল প্রকার গান, তেলাওয়াত ও যিকির সম্পূর্ণরূপে শরী‘আতবিরোধী কাজ(ইবনু তায়মিয়াহ, ইখতিয়ারাতুল ফিক্বহিইয়াহ, ৪০৭ পৃঃ)। ইবনু হাজার আসক্বালানী (রহঃ) বলেন, সাহারীর সময় (আযান ব্যতীত) লোক জাগানোর নামে অন্য যেসব কাজ করা হয়, সবই বিদ‘আত (ইবনু হাজার, ফাৎহুল … Continue reading

Posted in আযানের পূর্বে মানুষকে জাগিয়ে দেওয়ার মাইকে কুরআন তেলাওয়াত করা যাবে কি? | Tagged , ,

মসজিদ কর্তৃপক্ষ শুদ্ধভাবে আযান ও ইক্বামত দেওয়ার লোক থাকা সত্ত্বেও অশুদ্ধ উচ্চারণকারী ব্যক্তিকে দিয়ে একাজ করিয়ে থাকে। এক্ষণে এর জন্য কর্তৃপক্ষের পরণতি কি হবে?


মসজিদের জন্য ক্ষতিকর কোন কারণ না থাকলে এর জন্য মসজিদের দায়িত্বশীল কর্তৃপক্ষ গুনাহগার হবে। রাসূলুল্লাহ (ছাঃ)  বলেন,  সাবধান! তোমরা প্রত্যেকেই দায়িত্বশীল। আর (ক্বিয়ামতের দিন) তোমরা প্রত্যেকে স্ব স্ব দায়িত্ব সম্পর্কে জিজ্ঞাসিত হবে (মুত্তাফাক্ব আলাইহ, মিশকাত হা/৩৬৮৫)। তবে মুছল্লীর ছালাতে কোন ক্ষতি … Continue reading

Posted in মসজিদে আযান ও ইক্বামত শুদ্ধভাবে না হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী হবে কি? | Tagged ,

আযানের পূর্বে দরূদে ইবরাহীমী পড়া যাবে কি?


আযানের পূর্বে দরূদে ইবরাহীমী পাঠ করার ব্যাপারে শরী‘আতের কোন নির্দেশনা নেই। সুতরাং তা বিদ‘আত। রাসূল (ছা) বলেন, যে ব্যক্তি এমন আমল করল, ‘যার প্রতি আমার নির্দেশ নেই তা প্রত্যাখ্যাত’ (মুসলিম হা/১৭১৮; মিশকাত হা/১৪০)। এছাড়া আযানের পূর্বে ও পরে আরো কিছু … Continue reading

Posted in আযানের পূর্বে দরূদে ইবরাহীমী পড়া যাবে কি? | Tagged

মসজিদের মাইকে আযান ব্যতীত অন্য কোন ঘোষণা দেয়া যাবে কি? যেমন মৃত সংবাদ, হারানো বিজ্ঞপ্তি, সরকারী ঘোষণা, চিকিৎসার ঘোষণা ইত্যাদি।


মসজিদে আযান ব্যতীত অন্য কোন ঘোষণা না দেওয়াই উচিত। যেমন হারানো বিজ্ঞপ্তি প্রচার করা যাবে না। রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) বলেন, কেউ মসজিদে হারানো বিজ্ঞপ্তি শুনলে সে যেন বলে আল্লাহ যেন তোমাকে জিনিষটি ফেরত না দেন। কারণ এ কাজের জন্য মসজিদ বানানো … Continue reading

Posted in মসজিদের মাইকে আযান ব্যতীত অন্য কোন ঘোষণা দেয়া যাবে | Tagged , , | Leave a comment

মুওয়াযযিনের নির্ধারিত কোন নেকী আছে কি? নির্দিষ্ট কয়েক বছর আযান দিলে বিশেষ নেকী রয়েছে কি?


আছে। মুওয়াযযিনের মর্যাদা সম্পর্কে রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) বলেন, মুওয়ায্যিনের আযানের ধ্বনি জিন ও ইনসান সহ যত প্রাণী শুনবে, ক্বিয়ামতের দিন সকলে তার জন্য সাক্ষ্য প্রদান করবে’ (বুখারী, মিশকাত হা/৬৫৬)। তিনি বলেন, ক্বিয়ামতের দিন মুওয়ায্যিনের গর্দান সবচেয়ে উঁচু হবে’ (মুসলিম, মিশকাত হা/৬৫৪)। … Continue reading

Posted in মুওয়াযযিনের নির্ধারিত কোন নেকী আছে কি? | Tagged | Leave a comment

বর্তমানে অনেক মসজিদে সতর্কতার জন্য ফজরের আযান ছুবহে ছাদিকের পূর্বে দেওয়া হয়। এরূপ করা জায়েয হবে কি? উক্ত আযানে ছালাত আদায় করা শুদ্ধ হবে কি?


শরী‘আত নির্ধারিত সময়ের পূর্বে আযান দিলে তা ছালাতের আযান বলে গৃহীত হবে না; বরং ছালাতের সময় হ’লে পুনরায় আযান দিতে হবে। আল্লাহ বলেন, ‘নিশ্চয়ই ছালাত মুমিনদের উপর নির্দিষ্ট সময়ের জন্য ফরয করা হয়েছে’ (নিসা ১০৩)। তবে পুনরায় আযান না দিয়ে … Continue reading

Posted in ফজরের আযান ছুবহে ছাদিকের পূর্বে দেওয়া যাবে কি? | Tagged | Leave a comment

মহিলারা আযান ও ইক্বামত দিতে পারে কি?


মহিলারা মহিলাদের জামা‘আতে আযান ও ইক্বামত  দিতে পারে। আয়েশা (রাঃ) আযান ও ইক্বামত দিয়ে মহিলাদের জামা‘আতে ইমামতি করেছেন (বায়হাক্বী কুবরা হা/১৭৮১. তামামুল মিন্নাহ পৃঃ ১৫৩, সনদ ছহীহ)। ইবনে ওমর (রাঃ)-কে একদা জিজ্ঞেস করা হল যে, ‘মহিলাদের উপর আযান আছে কি? … Continue reading

Posted in আযান ও ইক্বামত মহিলারা দিতে পারে কি?, ইক্বামত মহিলারা দিতে পারে কি? | Tagged | Leave a comment