Tag Archives: ই‘তিকাফ

কারণবশতঃ এক মসজিদে ই‘তিকাফ করে অন্য মসজিদে তারাবীহর ছালাতের ইমামতি করা যাবে কি?


এরূপ সুযোগ নেই। কেননা ই‘তিকাফ অবস্থায় একান্ত বাধ্যগত অবস্থা ব্যতীত মসজিদ থেকে বের হওয়া যাবে না। হযরত আয়েশা (রাঃ) বলেন, রাসূল (ছাঃ) ই‘তিকাফে থাকা অবস্থায় প্রাকৃতিক প্রয়োজন (পেশাব-পায়খানা ইত্যাদি) ব্যতীত গৃহে প্রবেশ করতেন না’ (বুখারী হা/২০২৯; মুসলিম হা/২৯৭; মিশকাত হা/২১০০)। তিনি … Continue reading

Posted in ই‘তিকাফ অবস্থায় অন্য মসজিদে তারাবীহর ছালাতের ইমামতি করা যাবে কি? | Tagged ,

হাদীছে ইতিকাফ অবস্থায় প্রয়োজন ব্যতীত ই’তিকাফস্থল থেকে বের হ’তে নিষেধ করা হয়েছে। এক্ষণে কি কি প্রয়োজন এর অন্তর্ভুক্ত হবে?


অবশ্য প্রয়োজনীয় বলতে মূলতঃ পায়খানা ও পেশাবের প্রয়োজনীয়তাকে বুঝানো হয়েছে (ইবনু হাজার, ফাৎহুলবারী হা/২০২৯-এর আলোচনা)। অতএব মসজিদে টয়লেটের ব্যবস্থা না থাকলে বাড়ি থেকে প্রাকৃতিক প্রয়োজন সেরে আসতে পারে (বুখারী হা/২০২৯; মুসলিম হা/২৯৭)। এছাড়া অন্যান্য বাধ্যগত প্রয়োজনও এর অন্তর্ভুক্ত হবে। আয়েশা (রাঃ) বলেন, … Continue reading

Posted in ইতিকাফ অবস্থায় কি কি প্রয়োজন ব্যতীত ই’তিকাফস্থল থেকে বের হওয়া নিষেধ? | Tagged

আমাদের এলাকায় কেউ কেউ ৪০ দিনের জন্য ই‘তিকাফে বসে। এরূপ বিধান শরী‘আতে আছে কি?


এরূপ কোন বিধান নেই। বরং রাসূল (ছাঃ) প্রত্যেক রামাযানে ১০ দিন ই‘তিকাফ করেছিলেন এবং জীবনের শেষ রামাযানে পূর্বের বছরের ছুটে যাওয়া ই‘তিকাফের ক্বাযাসহ ২০ দিন ই‘তিকাফ করেছিলেন (বুখারী হা/২০৪৪; আহমাদ হা/২১৩১৪)।

Posted in ই‘তিকাফে ৪০ দিনের জন্য বসা যাবে কি? | Tagged

আমি যে মসজিদে ই‘তিকাফ করি, সেখানে ২০ রাক‘আত তারাবীহর ছালাত আদায় করা হয়। এক্ষণে এক্ষেত্রে আমার করণীয় কি?


এক্ষেত্রে জামা‘আতে ৮ রাক‘আত ছালাত আদায় করে নিয়ে ই‘তিকাফ স্থলে ফিরে আসবে এবং অন্যান্য নফল ইবাদত করবে। কারণ রাসূল (ছাঃ) রামাযান বা রামাযানের বাইরে ১১ বা ১৩ রাক‘আতের অধিক রাত্রিকালীন নফল ছালাত আদায় করেননি’ (বুখারী হা/১১৪৭; মুসলিম হা/১৭২৩; আবুদাঊদ, মিশকাত হা/১২৬৪)। তবে … Continue reading

Posted in তারাবীহ ২০ রাক‘আত আদায় করা মসজিদে ই‘তিকাফ কারীর করণীয় কি? | Tagged ,

জুম‘আর মসজিদে না নিয়মিত জামা‘আত কায়েম হয় এরূপ মসজিদে ই‘তিকাফ করার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে? আর নারীরা কি বাড়িতে ই‘তিকাফ করতে পারবে?


ই‘তিকাফের জন্য জুম‘আ মসজিদ হওয়াই উত্তম। তবে জামা‘আত হয় এরূপ ওয়াক্তিয়া মসজিদে ই‘তিকাফ করাও জায়েয। ‘জামে মসজিদ ব্যতীত ই‘তিকাফ হবে না’ (আবুদাঊদ হা/২৪৭৩) মর্মে আয়েশা (রাঃ) হ’তে বর্ণিত হাদীছটি অন্য বর্ণনায় এসেছে, ‘জামা‘আত হয় এরূপ মসজিদে ই‘তিকাফ হবে’ (দারাকুৎনী হা/২৩৮৮, ইরওয়াউল গালীল হা/৯৬৬)। বিস্তারিত … Continue reading

Posted in ই‘তিকাফ কি বাড়িতে করতে পারবে? | Tagged

ই‘তিকাফরত অবস্থায় অপর ই‘তিকাফকারীর সাথে বা বাইরের মানুষের সাথে গল্পগুজব করা জায়েয হবে কি?


ই‘তিকাফের মূল উদ্দেশ্যই হচ্ছে দুনিয়াবী কাজকর্ম থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে নিবিষ্ট মনে পরকালীন পাথেয় সঞ্চয়ে ব্যস্ত থাকা। তাই এসময় সাধারণ গল্প-গুজব জায়েয নয়। তবে দ্বীনী বিষয়ে বা প্রয়োজনীয় কথা বলায় বাধা নেই। নবী-সহধর্মিনী ছাফিয়া (রাঃ) বর্ণনা করেন যে, একবার তিনি রামাযানের … Continue reading

Posted in ই‘তিকাফরত অবস্থায় গল্পগুজব করা জায়েয হবে কি? | Tagged

ই‘তিকাফ করার সময় কারো যদি মসজিদে খাবার দেওয়ার কেউ না থাকে, তবে সে সামান্য দূরে বাড়ি থেকে সাহারী ও ইফতার করে আসতে পারবে কি?


উপরোক্ত অবস্থায় উপায়ান্তর না থাকলে খাবার আনার জন্য বাড়িতে যাওয়া যাবে। খাবার এনে মসজিদে বসে খাবে। অথবা বাড়ীতে গিয়ে খেয়ে চলে আসবে। কোনরূপ অপ্রয়োজনীয় কথা বলা যাবে না। এটি একান্ত প্রাকৃতিক প্রয়োজন হিসাবে গণ্য হবে ইনশাআল্লাহ। হযরত আয়েশা (রাঃ) বলেন, … Continue reading

Posted in ই‘তিকাফ করার সময় সামান্য দূরে বাড়ি থেকে সাহারী ও ইফতার করে আসতে পারবে কি? | Tagged

জনৈক আলেম বলেন, রাসূল (ছাঃ) বলেছেন যে, রামাযান মাসে ইতিকাফকারী দু’টি হজ্জ ও দু’টি ওমরাহ করার সমপরিমাণ নেকী পায়। এর কোন সত্যতা আছে কি?


উক্ত মর্মে বর্ণিত হাদীছটি মাওযূ। এছাড়া ইতিকাফের ফযীলত বর্ণনায় যত হাদীছ এসেছে সবই যঈফ (ইবনু মাজাহ হা/১৭৮১; যঈফাহ হা/৫৩৪৫; যঈফুল জামে‘ হা/৫৪৫২)।

Posted in ইতিকাফকারী দু’টি হজ্জ ও দু’টি ওমরাহ করার সমপরিমাণ নেকী পায় কি? | Tagged

ই‘তিকাফ অবস্থায় মোবাইলে কথা বলা বা কোন আগন্তুক ব্যক্তি সাক্ষাৎ করতে এলে তার সাথে কথা বলা যাবে কি?


বাধ্যগত অবস্থা ছাড়া এ সময় কারো সাথে কথা বলা ঠিক নয়। রাসূল (ছাঃ) ই‘তিকাফ অবস্থায় প্রয়োজনবোধে দু’জন ব্যক্তির সাথে কথা বলেছিলেন (বুখারী হা/২০৩৫; মুসলিম হা/২১৭৫)। এছাড়া ই‘তিকাফের পবিত্রতা বিরোধী কোন কথা বলা যাবে না এবং প্রয়োজনীয় কথা অতি সংক্ষেপে সারতে হবে।

Posted in ই‘তিকাফ অবস্থায় মোবাইলে কথা বলা যাবে কি? | Tagged

জুম‘আ মসজিদ ব্যতীত জামা‘আতে ছালাত হয় এরূপ মসজিদে ই‘তিকাফ করা যাবে কি? বিশেষত নারীরা এরূপ মসজিদে ই‘তিকাফ করতে পারবে কি?


ই‘তিকাফের জন্য জুম‘আ মসজিদ হওয়াই উত্তম। তবে জামা‘আত হয় এরূপ ওয়াক্তিয়া মসজিদে ই‘তিকাফ করাও জায়েয। কারণ এ মর্মে আয়েশা (রাঃ) বর্ণিত হাদীছটি একটি বর্ণনায় ‘জামে মসজিদ ব্যতীত ই‘তিকাফ হবে না’(আবুদাঊদ হা/২৪৭৩) আসলেও অন্য বর্ণনায় ‘জামা‘আত হয় এরূপ মসজিদে ই‘তিকাফ হবে’ এসেছে (দারাকুৎনী … Continue reading

Posted in ই‘তিকাফ জুম‘আ মসজিদ ব্যতীত অন্য মসজিদে করা যাবে কি? | Tagged , ,

ওয়াক্তিয়া মসজিদে ই‘তিকাফ করা যায় কি? এছাড়া মহিলারা নিজ বাড়ীতে ই‘তিকাফ করতে পারে কি?


পুরুষ বা মহিলা কারো জন্যই জুম‘আ মসজিদ ব্যতীত ই‘তিকাফ করা সিদ্ধ নয় (বাক্বারাহ্ ১৮৭, আবুদাঊদ; মিশকাত হা/২১০৬)। মহিলাদের জন্য এরূপ মসজিদে পৃথক জায়গা থাকলে এবং যথাযথ নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকলে কোন জুম‘আ মসজিদে গিয়ে ই‘তিকাফ করতে পারবে। রাসূল (ছাঃ)-এর স্ত্রীগণ মসজিদে … Continue reading

Posted in ই‘তিকাফ ওয়াক্তিয়া মসজিদ না হলে করা যায় কি?, ই‘তিকাফ মহিলারা নিজ বাড়ীতে ই‘তিকাফ করতে পারে কি? | Tagged