Tag Archives: ঋণ

ঢাকা শহরে বাড়ি করার ক্ষেত্রে ব্যাংক ঋণ না দেখালে সরকারী ট্যাক্সের পরিমাণ অনেক বেড়ে যায়। এক্ষণে সরকারী যুলুম থেকে বাঁচার জন্য ব্যাংক ঋণ নেওয়া জায়েয হবে কি?


সাধ্যপক্ষে ঋণ নেওয়া থেকে বিরত থাকাই সমীচীন। কারণ ঋণ নিলে এক অন্যায় থেকে বাঁচতে আরেকটি অন্যায় করা হবে। অতএব সরকারী আইন বৈষম্য ও নিপীড়নমূলক হলেও পরিবর্তন না হওয়া পর্যন্ত বাধ্যগত অবস্থায় তা অনুসরণ করাই বাঞ্ছনীয় (বুখারী, মুসলিম; মিশকাত হা/৫৩৮২, ৩৬৭২, ৩৬৭৩)। … Continue reading

Posted in যুলুম থেকে বাঁচার জন্য ব্যাংক ঋণ নেওয়া জায়েয হবে কি? | Tagged , ,

পিতামাতার ঋণ থাকলে সন্তান কিভাবে তা শোধ করবে? নিজের উপার্জিত সম্পদ থেকে সন্তান পিতা-মাতার ঋণ পরিশোধ করতে বাধ্য কি?


সন্তান পিতা-মাতার পরিত্যক্ত সম্পদ থেকে তাদের ঋণ পরিশোধ করবে। আল্লাহ তা‘আলা মীরাছের আলোচনা শেষে বলেন, মৃতের অছিয়ত পূরণ করার পর এবং তার ঋণ পরিশোধের পর (নিসা ৪/১১)। তবে নিজ সম্পত্তি থেকে পিতা-মাতার ঋণ পরিশোধ করা সন্তানের জন্য বাধ্যতামূলক নয় (ইবনু তায়মিয়াহ, মিনহাজুস … Continue reading

Posted in ঋণ পিতামাতার থাকলে সন্তান কিভাবে তা শোধ করবে? | Tagged

অনেক পাওনাদার টাকা দিতে না পারলে যাকাত থেকে টাকা কেটে রাখতে অনুরোধ জানায়। তাছাড়া যে টাকা দেয় তার নিয়ত থাকে, যদি কোন পাওনাদার টাকা দিতে ব্যর্থ হয়, সেক্ষেত্রে পরবর্তীতে উক্ত টাকা যাকাত থেকে বাদ দিয়ে দেয়া হবে। এটা জায়েয হবে কি?


উক্ত টাকা যাকাত হিসাবে বাদ দেওয়া যাবে না। কারণ যাকাতের বিধান হ’ল ধনীদের নিকট থেকে নিয়ে তা গরীবদের মাঝে বিতরণ করা (বুঃ মুঃ মিশকাত হা/১৭৭২)। এখানে সেটি নেই। তাছাড়া ঋণগ্রহীতা এক্ষেত্রে যাকাতের হকদার নাও হ’তে পারে। আর যদি হকদার হয়ও তবুও … Continue reading

Posted in পাওনাদার টাকা দিতে না পারলে যাকাত থেকে টাকা কেটে রাখা যাবে কি? | Tagged ,

পিতামাতার ঋণ থাকলে সন্তান কিভাবে তা শোধ করবে? নিজের উপার্জিত সম্পদ থেকে সন্তান পিতা-মাতার ঋণ পরিশোধ করতে বাধ্য কি?


সন্তান পিতা-মাতার পরিত্যক্ত সম্পদ থেকে তাদের ঋণ পরিশোধ করবে। মীরাছের আলোচনা শেষে আল্লাহ বলেন, মৃতের অছিয়ত পূরণ করার পর এবং তার ঋণ পরিশোধের পর.. (নিসা ৪/১১)। তবে নিজ সম্পত্তি থেকে পিতা-মাতার ঋণ পরিশোধ করা সন্তানের জন্য বাধ্যতামূলক নয় (ইবনু তায়মিয়াহ, মিনহাজুস সুন্নাহ … Continue reading

Posted in ঋণ পিতামাতার থাকলে সন্তান কিভাবে তা শোধ করবে? | Tagged ,

দাদন ব্যবসা কাকে বলে? এটা কি বৈধ?


‘দাদন’ শব্দটি ফার্সী দাদান (প্রদান করা) শব্দ থেকে উদ্ভূত। কোন ব্যক্তি কোন ব্যবসায়িক চুক্তি হিসাবে কোন কিছু অগ্রিম দিলে তাকে দাদনদার বলা হয়। আঠারো শতকে বাংলায় ইংরেজ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানীর ব্যবসা-ব্যবস্থাপনায় দাদন কথাটি একটি বাণিজ্যিক পরিভাষা হিসাবে চালু হয়। কোম্পানী … Continue reading

Posted in দাদন ব্যবসা কাকে বলে? এটা কি বৈধ? | Tagged , ,

ব্যাংক থেকে সূদে ঋণ নিয়ে বাড়ি করলে উক্ত বাড়ির ভাড়া ভোগ করা মালিকের জন্য বৈধ হবে কি?


প্রথমতঃ সূদের উপর ঋণ নিয়ে বাড়ি নির্মাণ করা জায়েয নয়। কারণ সূদ সর্বাবস্থায় হারাম এবং সবচেয়ে বড় কবীরা গুণাহসমূহের অন্তর্ভুক্ত (বাক্বারাহ ২/২৭৫৮)। অতএব উক্ত ব্যক্তিকে অবিলম্বে খালেছ তওবা করতে হবে এবং যত দ্রুত সম্ভব ঋণ পরিশোধ করতে হবে। দ্বিতীয়তঃ উক্ত ঋণ … Continue reading

Posted in ব্যাংক থেকে টাকা নিয়ে বাড়ী করে ভাড়া ভোগ করা যাবে কি? | Tagged , ,

আমার এক ছেলে অনেক ঋণের মধ্যে পড়েছে যা পরিশোধ করতে ২ বিঘা জমি বিক্রয় করতে হবে। এক্ষণে অন্য সন্তানদের অবহিত না করে আমার স্থাবর সম্পত্তি বিক্রয় করে তার ঋণ পরিশোধ করা জায়েয হবে কী?।


কোন সন্তান বিপদগ্রস্ত বা ঋণী হ’লে বিপদমুক্তি ও ঋণ পরিশোধের জন্য প্রয়োজনীয় অর্থ খরচ করতে বাধা নেই এবং এতে অন্য সন্তানদের সম্মতি থাকা অপরিহার্য নয়। কেননা বিপদগ্রস্ত সন্তানকে সহযোগিতা করা পিতার দায়িত্ব এবং তা ন্যায়বিচারেরই অন্তর্ভুক্ত। ইবনু তায়মিয়াহ (রহঃ)-এর মতে, … Continue reading

Posted in সম্পদ ছেলের ঋণের কারনে অন্য ছেলেদের না জানিয়ে বিক্রয় করতে পারবো কি? | Tagged , , ,

আমার আপন ভাই নানা প্রকার সূদী ঋণ নিয়ে বেশুমার খরচ করে এখন ঋণগ্রস্ত। একই সাথে তার নেশাখোর সন্তান নানাভাবে বহু অর্থ নষ্ট করে চলেছে। এক্ষণে তার ঋণমুক্তির জন্য আমরা ভাই-বোনেরা যাকাতের টাকা প্রদান করলে তা জায়েয হবে কি? উল্লেখ্য যে, বিষয়টি স্বভাবগত হওয়ায় হয়তবা সে আবারো ঋণগ্রস্ত হবে। এমতাবস্থায় করণীয় কি?


যাকাতের অর্থ থেকে ঋণগ্রস্ত ভাইকে দেওয়া যাবে (তাওবাহ ৯/৬০)। বরং আত্মীয়কে দিলে দ্বিগুণ ছওয়াব হবে রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) বলেন, ‘মিসকীনকে ছাদাক্বা দিলে একটি নেকী হয়। কিন্তু সে যদি রক্ত সম্পর্কীয় নিকটাত্মীয় হয়, তবে নেকী দ্বিগুণ হয়। এক- ছাদাক্বা এবং দুই-আত্মীয়তা (আহমাদ, তিরমিযী প্রভৃতি, … Continue reading

Posted in যাকাতের টাকা নেশাখোর ভাইকে প্রদান করা জায়েয হবে কি? | Tagged , ,

একজন ছাহাবীর মাত্র দুই দীনারের জন্য কবরের আযাব হয়েছিল এবং অন্য ছাহাবী যখন তার ঋণ পরিশোধ করে দিয়েছিলেন তখন তার কবরের আযাব বন্ধ হয়েছিল। হাদীছটি ছহীহ কি?


উক্ত মর্মে বর্ণিত হাদীছটি ছহীহ (আহমাদ হা/১৪৫৭৬; ছহীহুত তারগীব হা/১৮১২)। অতএব ঋণ পরিশোধের ব্যাপারে সদা সতর্ক থাকতে হবে।

Posted in ঋণ পরিশোধ করার ক্ষমত না থাকলে মারা গেলে আমার কি শাস্তি হবে?, ঋণ পরিশোধ করার মত ক্ষমতা না থাকলে করণীয় কি?, ঋণ রেখে মারা গেলে সেই ঋণ পরিবারের জন্য পরিশোধ করা আবশ্যক কি? | Tagged

আমি পরিচিত এক ব্যক্তির নিকট থেকে ৪০ হাযার টাকা ধার করেছি। বর্তমানে আমি রোগে ভুগছি। যেকোন সময় মারা যেতে পারি। অসুস্থতার কারণে কোন চাকুরীতে ঢুকতে না পারায় পরিশোধ করাও অসম্ভব হয়ে পড়েছে। এমতাবস্থায় মারা গেলে আমার কি শাস্তি হবে? ঋণের ব্যাপারে আমার করণীয় কি?


ঋণ থাকা অবস্থায় মারা গেলে এবং তা পরিশোধ না করা হ’লে শাস্তি পেতে হবে। সেজন্য মৃত্যুর পূর্বে ঋণ পরিশোধ করা অত্যন্ত যরূরী। কারণ ঋণ বান্দার হক। তা বান্দা ক্ষমা না করলে আল্লাহ ক্ষমা করবেন না। রাসূল (ছাঃ) বলেন, ‘মুমিনের আত্মা … Continue reading

Posted in ঋণ পরিশোধ করার ক্ষমত না থাকলে মারা গেলে আমার কি শাস্তি হবে? | Tagged

আমি শয়তানের ধোঁকায় পড়ে ১৯-২০ লক্ষ টাকা ঋণ করে নষ্ট করে ফেলেছি। বর্তমানে আমি একটা চাকুরী করে মাসে ২০ হাযার টাকা বেতন পাই। আমাকে এখন পাওনাদার প্রতিদিনই টাকা দেওয়ার জন্য চাপ দেয়। আমি মানসিকভাবে হতাশাগ্রস্ত। এমতাবস্থায় আমি কি করতে পারি?


সবকিছু দিয়ে হ’লেও ঋণ পরিশোধ করার চেষ্টা করতে হবে। এছাড়া বেতন থেকে প্রতিমাসে কিছু টাকা পরিশোধ করার চেষ্টা করবে। সেটাও সম্ভব না হ’লে ঋণদাতার নিকট ঋণ মওকূফের জন্য আবেদন করতে হবে। এতে সে সম্মত না হ’লে সমাজের বায়তুল মাল তহবিল … Continue reading

Posted in ঋণের কারণে মানসিকভাবে হতাশাগ্রস্ত। এমতাবস্থায় আমি কি করতে পারি? | Tagged

জনৈক ব্যক্তি মোটা অংকের সূদের ঋণ রেখে মারা গেছেন। কিন্তু তার রেখে যাওয়া তেমন কোন সম্পদ নেই। এক্ষণে তার পরিবারের জন্য উক্ত ঋণ পরিশোধ করা আবশ্যক কি?


এক্ষেত্রে মৃতের সকল সম্পদ বিক্রি করে হলেও পরিবারকে ঋণ পরিশোধ করতে হবে। কারণ ঋণ পরিশোধ ব্যতীত মৃত্যুবরণ করলে হাশরের মাঠে নিজ নেকী থেকে ঋণের দাবী পূরণ করতে হবে (বুখারী, মিশকাত হা/৫১২৬ ‘আদব’ অধ্যায় ‘যুলুম’ অনুচ্ছেদ)। রাসূল (ছাঃ) বলেন, ‘মুমিনের আত্মা ঝুলন্ত … Continue reading

Posted in ঋণ রেখে মারা গেলে সেই ঋণ পরিবারের জন্য পরিশোধ করা আবশ্যক কি? | Tagged

ঋণগ্রস্ত ব্যক্তির উপর হজ্জ ফরয হয় না। কিন্তু দীর্ঘ মেয়াদী ঋণের ক্ষেত্রেও কি এটি প্রযোজ্য হবে? যেমন কোন ব্যক্তির রিয়েল এস্টেট ব্যবসায় ঋণ নেয়া আছে। যে ঋণ পরিশোধ করতে তার আজীবন লেগে যাবে। এই ব্যক্তির উপর কি হজ্জ ফরয?


যদি কোন ঋণ তাৎক্ষণিকভাবে পরিশোধ করা আবশ্যিক হয়, তাহ’লে হজ্জের উপর ঋণ পরিশোধ প্রাধান্য পাবে। কেননা হজ্জ ফরয হওয়ার আগেই ঋণ হয়েছে। কিন্তু যদি তা দীর্ঘমেয়াদী ঋণ হয়, সেক্ষেত্রে ব্যক্তি যদি মনে করে যে, ঋণ পরিশোধের মেয়াদে সে তা পরিশোধ … Continue reading

Posted in হজ্জ ঋণগ্রস্ত ব্যক্তির উপর ফরয হয় কি? | Tagged ,

আমার পিতা-মাতা ১৫ বছর যাবৎ ইচ্ছাকৃতভাবে ঋণগ্রস্থ। বিভিন্ন এনজিও থেকে ঋণ নেওয়া তাদের নেশা। বর্তমানে প্রতিমাসে ৫০-৬০ হাযার টাকা কিস্তি শোধ করতে হয়। আমি ও আমার ছোট ভাই সাধ্যমত পরিশোধ করি। তা না করলে তারা আমাদের স্ত্রী-সন্তানদের উপর মানসিক নির্যাতন করে ও বাড়ী থেকে বের করে দিতে চায়। এক্ষণে এ ব্যাপারে আমাদের করণীয় কি?


এমতাবস্থায় পিতা-মাতাকে এরূপ অন্যায়কর্ম থেকে বিরত রাখার জন্য জোরালো পদক্ষেপ নিতে হবে। সূদের ভয়াবহ শাস্তি থেকে তাদেরকে সাবধান করতে হবে। ইমাম ইবনু তায়মিয়াহ (রহঃ) বলেন, প্রয়োজনে তাদেরকে গৃহবন্দী করে রাখতে হবে। আর এক্ষেত্রে পাপ থেকে বাঁচানোই তাদের প্রতি সদ্ব্যবহার হিসাবে … Continue reading

Posted in পিতা-মাতা ইচ্ছাকৃতভাবে ঋণগ্রস্থ হলে করণীয় কি? | Tagged ,

যাকাতের সম্পদ থেকে নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ দেওয়ার নিয়ত করে আমার নিকট থেকে ঋণগ্রহীতাকে কিছু ঋণ মাফ করে দেওয়া যাবে কি?.


সাধারণভাবে এরূপ করা জায়েয নয়। তবে ঋণগ্রহীতা যদি হতদরিদ্র হয় তথা যাকাত গ্রহণের প্রকৃত হকদার হয়, সেক্ষেত্রে তাকে যাকাতের অর্থ দেওয়া যাবে (মাজমূ‘ ফাতাওয়া ২৫/৮৪; উছায়মীন, মাজমূ‘ ফাতাওয়া ১৮/২৪৬, ৩৩৭)।

Posted in যাকাতের সম্পদ ঋণগ্রহীতাকে দেওয়া যাবে কি? | Tagged

ব্যাংকে মোটা অংকের অর্থ জমা থাকায় প্রতিবছর যাকাত দিতাম। কিন্তু কয়েক বছর পূর্বে একজনকে তা ঋণ দিয়েছি। এক্ষণে উক্ত সম্পদের যাকাত আমাকে না ঋণ গ্রহীতাকে পরিশোধ করতে হবে?


যাকাত প্রদানের জন্য নিছাব পরিমাণ সঞ্চিত সম্পদ থাকা আবশ্যক (বুখারী হা/১৪৫৯; মুসলিম হা/৯৮০; মিশকাত হা/১৭৯৪) এবং তা এক বছর অতিক্রান্ত হওয়া শর্ত (আবুদাঊদ হা/১৫৭৩)। ঋণদাতা ঋণ প্রদানের পর উক্ত সম্পদের মালিক থাকেন না। অতএব তাকে এর যাকাত দিতে হবে না। তবে যদি ঋণ … Continue reading

Posted in সম্পদ ঋণ দেওয়া থাকলে কে যাকাত দিবে? | Tagged ,

জনৈক ব্যক্তির নিকটে আমি ঋণী আছি বলে জানতে পারি ৩২ বছর পর। অতঃপর আমি তার পাওনা ৫০০০ টাকা নিয়ে তার কাছে গেলে তিনি তা ছুঁড়ে ফেলে দিয়ে বলেন সেই সময়ের টাকার মান ছিল অনেক বেশী। তাই এখন ৫ লক্ষ টাকা দিতে হবে। এক্ষণে আমার করণীয় কি?


ঋণদাতা পাওনা টাকার বাইরে দাবী করতে পারবে না। নির্ধারিত টাকার বেশী গ্রহণ করলে তা সূদ হবে (ইরওয়া হা/১৩৯৭)। তাই সূদের ভয়াবহ পরিণামের বিষয়টি তাকে বুঝানোর চেষ্টা করতে হবে। যেকোন উপায়ে উক্ত অর্থ তাকে প্রদান করে দায়িত্বমুক্ত হ’তে হবে।

Posted in ঋণদাতা ৫হাজার টাকার বদলে ৫লক্ষ টাকা দাবি করলে করণীয় কি? | Tagged

আমি বিপুল পরিমাণ টাকা ঋণ করে বিদেশে এসেছি। এক্ষণে আমার ইনকাম থেকে বেশী বেশী দান করব না ঋণ পরিশোধে টাকা ব্যয় করব?


ঋণ পরিশোধকে অগ্রাধিকার দিতে হবে। রাসূল (ছাঃ) বলেন, ধনী ব্যক্তির (ঋণ আদায়ে) গড়িমসি করা যুলুম’ (বুখারী হা/২৪০০; মুসলিম হা/১৫৬৪; মিশকাত হা/২৯০৭)। ইমাম বুখারী (রহঃ) বলেন, ‘যে ব্যক্তি ছাদাক্বাহ করতে চায়; অথচ সে নিজেই দরিদ্র বা তার পরিবার-পরিজন অভাবগ্রস্ত অথবা সে ঋণগ্রস্ত, … Continue reading

Posted in দান বেশী করব না ঋণ পরিশোধে টাকা ব্যয় করব? | Tagged

আমি নেকীর আশায় সৎ মানুষদের মাঝে বিনা সূদে টাকা ঋণ দিয়ে থাকি। গ্রহীতাগণ তা সাপ্তাহিক কিস্তিতে আমাকে পরিশোধ করেন। কিন্তু বর্তমানে আমি অন্য কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়ায় ঋণ লেনদেনের জন্য বেতন দিয়ে একজন লোক রাখি এবং ঋণগ্রহীতাগণ মাসে বেতন বাবদ প্রত্যেক মাসে কিছু টাকা দিতে হয়।এ জন্য কিছু টাকা বেশি নিয়ে থাকি, এটা সূদ হবে কি?


সূদ হবে না ইনশাআল্লাহ। বিবরণ অনুযায়ী সার্ভিস চার্জ প্রয়োজন অনুসারে নিতে পারে। কারণ এটা ঋণের বিনিময়ে লাভ হিসাবে নয়, বরং সংশ্লিষ্ট কর্মীর বেতন হিসাবে গ্রহণ করা হচ্ছে। তবে নিয়তের সামান্য গরমিল হ’লে নেকীর কাজ গুনাহে পরিণত হবে। অতএব এক্ষেত্রে সাবধানতা … Continue reading

Posted in ঋণ দিয়ে কিস্তিতে কিছু টাকা বেশি নেওয়া যাবে কি? | Tagged

আমি শুনেছি ঋণের গুনাহ আল্লাহ ক্ষমা করবেন না। কিন্তু আমি অনেক টাকা ঋণী হয়ে আছি, যা পরিশোধ করার মত কোন সম্পদ আমার নেই। এক্ষণে আমার করণীয় কি?


এরূপ ব্যক্তিকে ঋণ পরিশোধের আপ্রাণ চেষ্টা করতে হবে। কারণ ঋণ পরিশোধ ব্যতীত মৃত্যুবরণ করলে হাশরের মাঠে নিজ নেকী থেকে ঋণের দাবী পূরণ করতে হবে (বুখারী, মিশকাত হা/৫১২৬ ‘আদব’ অধ্যায় ‘যুলুম’ অনুচ্ছেদ)। নবী করীম (ছাঃ) বলেন, ‘মুমিনের আত্মা ঝুলন্ত অবস্থায় রাখা হয় … Continue reading

Posted in ঋণ পরিশোধ করার মত ক্ষমতা না থাকলে করণীয় কি? | Tagged

আমার উপর হজ্জ ফরজ হয়েছে। কিন্তু আমার কিছু ঋণ রয়েছে। ঋণ পরিশোধ না করে হজ্জ করা যাবে কি?


ঋণের সাথে হজ্জের কোন সম্পর্ক নেই। তবে ঋণ পরিশোধ করলে যদি হজ্জের সামর্থ না থাকে, তবে তার উপর হজ্জ ফরয হয়নি। এমতাবস্থায় তার ঋণ পরিশোধ করা ফরয। আর যদি ঋণ পরিশোধ করে হজ্জ করার সামর্থ্য থাকে তাহ’লে পরিশোধ না করে … Continue reading

Posted in হজ্জ ঋণ পরিশোধ না করে করা যাবে কি? | Tagged ,

কোন মাদরাসার মূল ফান্ড থেকে ঋণ নেয়া বৈধ হবে কি? কেউ কেউ বলেন, ফান্ডের মালিকানা যৌথ হওয়ার কারণে তা থেকে ঋণ নেয়া বৈধ নয়। এর সঠিক সমাধান জানতে চাই।


মাদরাসার ফান্ডের ব্যাপারে কমিটির সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত। মাদরাসা কর্তৃপক্ষ কোন ব্যক্তিকে কর্যে হাসানাহ দিলে তাতে শরী‘আতে কোন বাধা নেই। এক্ষেত্রে তারা কোন অন্যায়ের আশ্রয় নিলে তারাই গোনাহগার হবে। এজন্য দাতাদের নেকীতে ঘাটতি হবে না।

Posted in ঋণ নেয়া বৈধ হবে কি মাদরাসার মূল ফান্ড থেকে? | Tagged