Tag Archives: ছিয়াম

একটি ইসলামী পত্রিকার প্রশ্নোত্তরে বলা হয়েছে যে, মুহাররম মাসের ৯-১১ মোট তিনদিন ছিয়াম পালন করা উত্তম ও পরিপূর্ণ পদ্ধতি। একথা সত্য কি?


একথা ঠিক নয়। বরং মুহাররম মাসের নবম ও দশম এ দু’দিন ছিয়াম পালন করাই সর্বোত্তম। কারণ রাসূল (ছাঃ) ইহূদীদের খেলাফ করার জন্য দশম দিনের সাথে নবম দিন যোগ করে মোট দু’দিন ছিয়াম পালনের আকাংখা প্রকাশ করেছিলেন (মুসলিম হা/১১৩৪; মিশকাত হা/২০৪১)। ইবনু … Continue reading

Posted in মুহাররম মাসের ৯-১১ মোট তিনদিন ছিয়াম পালন করা উত্তম কি? | Tagged

জনৈক ব্যক্তি বলেন ছহীহ বুখারীতে হাদীছ আছে যে, মাথায় উকুন হ’লে ৩ দিন ছিয়াম বা ৬ জন মিসকীনকে অর্ধ ছা‘ করে খাওয়ালে মাথার উকুন থাকবে না। একথা কি সত্য?


এরূপ কোন নির্দেশনা ছহীহ বুখারী বা অন্য কোন হাদীছ গ্রন্থে নেই। তথ্যদাতা সম্ভবতঃ হজ্জের বিধান সংশ্লিষ্ট ছহীহ বুখারীর একটি হাদীছ দেখে ভ্রমে পতিত হয়েছেন। হাদীছটি হ’ল- আব্দুল্লাহ ইবনু মা‘ক্বিল (রহঃ) হ’তে বর্ণিত তিনি বলেন, আমি কা‘ব ইবনু উজরা (রাঃ)-এর পাশে … Continue reading

Posted in মাথায় উকুন হ’লে ৩ দিন ছিয়াম রাখলে মাথার উকুন থাকবে না। একথা কি সত্য? | Tagged ,

শাওয়াল মাসের ছিয়াম ধারাবাহিকভাবে রাখতে হবে কি? এছাড়া কারণবশতঃ এ মাসের মধ্যে সবকয়টি রাখা সম্ভব না হলে পরের মাসে ক্বাযা আদায় করা যাবে কি?


রামাযানের পর পরই শাওয়াল মাসের ছয়টি ছিয়াম ধারাবাহিকভাবে রাখা উত্তম। তবে কেউ যদি মাঝে মধ্যে ছিয়াম বাদ দেয় তাতে কোন দোষ নেই। মোটকথা শাওয়াল মাসের এই ছিয়াম পালনের নেকী অর্জনের জন্য এ মাসের মধ্যেই ছয়টি ছিয়াম পালন করতে হবে।

Posted in শাওয়াল মাসের ছিয়াম ধারাবাহিকভাবে রাখতে হবে কি? | Tagged ,

আমি প্রতি বৃহষ্পতিবার রোযা রাখি। ঘটনাক্রমে ১২ ই যিলহজ্জ বৃহষ্পতিবার পড়েছে এবং সেদিন আমি রোযা রেখেছি। আমি জুমার দিন শুনেছি যে, তাশরিকের দিনগুলোতে রোযা রাখা নাজায়েয। বৃহষ্পতিবার ছিল তাশরিকের তৃতীয় দিন। আমি যে, রোযা রেখেছি সে কারণে আমার উপরে কি কোন কিছু বর্তাবে? সত্যিকার-ই কি তাশরিকের দিনগুলোতে রোযা রাখা নাজাযেয; নাকি শুধু ঈদের প্রথম দিন আমরা রোযা রাখব না?


দুই ঈদের দিন রোযা রাখা হারাম। দলিল হচ্ছে আবু সাঈদ খুদরি (রাঃ) এর হাদিস; তিনি বলেন: “নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আযহার দিন রোযা রাখতে বারণ করেছেন”।[সহিহ বুখারী (১৯৯২) ও সহিহ মুসলিম (৮২৭)]। আলেমগণ ইজমা করেছেন … Continue reading

Posted in তাশরিকের দিনগুলোতে রোযা রাখার বিধান কি? | Tagged ,

পেশায় নাবিক হওয়ায় আমাকে এক বছরের জন্য জাহাযে যেতে হয় এবং বিভিন্ন দেশে মালামাল পরিবহন করতে হয়। প্রত্যেক বন্দরে সর্বোচ্চ পাঁচদিন অবস্থান করা যায়। জাহাযে ছিয়াম পালন আমার জন্য খুবই কষ্টকর হয়। এক্ষণে ফরয ছিয়াম পালন থেকে বিরত থাকা যাবে কি? এছাড়া নিয়মিতভাবে ছালাত ক্বছর করা যাবে কি?


ফরয ছিয়াম সাধ্যপক্ষে পালন করার চেষ্টা করতে হবে। কষ্টকর হ’লে ছেড়ে দিবে এবং পরবর্তীতে ক্বাযা আদায় করবে। আল্লাহ বলেন, তোমাদের মধ্যে যে ব্যক্তি পীড়িত হবে অথবা সফরে থাকবে, সে যেন এটি অন্য সময় পালন করে (বাক্বারাহ ২/১৮৪)। একবার সফরে থাকা অবস্থায় … Continue reading

Posted in ছালাত নিয়মিতভাবে ক্বছর করা যাবে কি?, ছিয়াম হতে বিরত থাকা যাবে কি কষ্টের কারনে? | Tagged ,

মাথা ব্যথার কারণে ডাক্তার আমাকে গরম পানিতে ঔষধ মিশিয়ে নাকে ভাপ নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। এতে আমার ছিয়াম ভঙ্গ হবে কি?


ভঙ্গ হবে না ইনশাআল্লাহ। এগুলি খাদ্য বা পানীয় নয় (ফাতাওয়া লাজনা দায়েমা ১০/২৭৫; উছায়মীন, মাজমূ‘ ফাতাওয়া ১৯/১৫৫)।

Posted in ছিয়াম রেখে গরম পানিতে ঔষধ মিশিয়ে নাকে ভাপ দেওয়া যাবে কি? | Tagged

ছিয়াম অবস্থায় ইচ্ছাকৃতভাবে বীর্যপাত করলে কাফফারা দিতে হবে কি?


রামাযান মাসে ইচ্ছাকৃত বীর্যপাত করালে ছিয়াম ভঙ্গ হয়ে যাবে। তবে এতে স্ত্রী সহবাসের ন্যায় কাফফারা দিতে হবে না। বরং সেই দিনের ক্বাযা আদায় করতে হবে এবং অধিকহারে তওবা-ইস্তিগফার করতে হবে। আর স্ত্রী সহবাসের সাথে এর তুলনা করা যাবে না (ইবনু কুদামা, … Continue reading

Posted in ছিয়াম অবস্থায় ইচ্ছাকৃতভাবে বীর্যপাত করলে কাফফারা দিতে হবে কি? | Tagged

জনৈক যুবক শারীরিক দুর্বলতার কারণে ছিয়াম রাখতে পারছে না। এক্ষণে তার জন্য করণীয় কি?


ছিয়াম ইসলামের পাঁচটি রুকনের অন্যতম। সুতরাং সম্ভবপর তা রাখার চেষ্টা করতে হবে। কোনভাবেই রাখা সম্ভব না হ’লে এটা রোগ হিসাবে গণ্য হবে। সেক্ষেত্রে তা গণনা করে রেখে পরবর্তীতে আদায় করবে। আল্লাহ বলেন, ‘আর যে ব্যক্তি পীড়িত হবে অথবা সফরে থাকবে … Continue reading

Posted in ছিয়াম শারীরিক দুর্বলতার কারণে রাখতে না পারলে করণীয় কি?, শারীরিক দুর্বলতার কারণে ছিয়াম রাখতে না পারলে করণীয় কি? | Tagged

একটি হাদীছে বর্ণিত হয়েছে যে, যে ব্যক্তি সন্দেহপূর্ণ দিনে ছিয়াম পালন করে, সে মুহাম্মাদ (ছাঃ)-এর অবাধ্যতা করল। কোন ছিয়ামের ক্ষেত্রে এটি প্রযোজ্য হবে?


এটি রামাযানের ছিয়ামের ক্ষেত্রে বলা হয়েছে। হাদীছটি হ’ল- তাবেঈ বিদ্বান ছিলাহ বিন যুফার (রহঃ) হ’তে বর্ণিত তিনি বলেন, একদা আমরা সন্দেহজনক দিনে ‘আম্মার (রাঃ)-এর নিকট ছিলাম। সেখানে একটি ভুনা বকরী পেশ করা হ’লে সেখানকার কিছু লোক (ছিয়াম রাখার কারণে) খাদ্য … Continue reading

Posted in সন্দেহপূর্ণ দিনে ছিয়াম পালন করলে মুহাম্মাদ (ছাঃ)-এর অবাধ্যতা করা হলো কি? | Tagged

ছিয়াম অবস্থায় ডায়াবেটিস রোগীদের ইনসুলিন গ্রহণের বিধান কি? বিশেষতঃ যাদের দিনে একাধিকবার গ্রহণের প্রয়োজন হয়।


ইফতারের পর ও সাহারীর পূর্বে ইনসুলিন নেওয়াই উত্তম। যদি এরপরেও প্রয়োজন হয়, সেটা দিনের বেলায় ছিয়াম অবস্থায় নিতে পারে। কেননা ইনসুলিন গ্রহণ করা ছিয়াম ভঙ্গের কারণ নয়। আর এটি কোন খাদ্য নয়। অনুরূপ হাঁপানী রোগের জন্য ছিয়াম অবস্থায় ‘ইনহেলার’ নেওয়া … Continue reading

Posted in ছিয়াম অবস্থায় ডায়াবেটিস রোগীদের ইনসুলিন নেওয়া যাবে কি? | Tagged

ছিয়াম অবস্থায় অসুখের কারণে ডুস ব্যবহার করা যাবে কি? এছাড়া চোখ, কান ও নাকের ঔষধ ব্যবহার করা যাবে কি?


যাবে। ডুস বা সাপোজিটরি যেহেতু খাদ্য নয়, খাদ্যের বিকল্পও নয় এবং তা পাকস্থলীতেও প্রবেশ করে না; বরং তা একপ্রকার ওষুধ, যা মলম বা ক্রীমের সঙ্গে তুলনা করা যায়। এর দ্বারা খাদ্যের কোন চাহিদা পূরণ হয় না। তাই এর দ্বারা ছিয়াম … Continue reading

Posted in ছিয়াম অবস্থায় অসুখের কারণে ডুস ব্যবহার করা যাবে কি?, ছিয়াম অবস্থায় চোখ কান ও নাকের ঔষধ ব্যবহার করা যাবে কি? | Tagged ,

অনেক পিতা-মাতা বাল্য অবস্থাতে শিশুদের ছিয়াম পালনের ব্যাপারে চাপ সৃষ্টি করেন। এভাবে ছিয়াম পালন করানো যাবে কি?


উৎসাহ দিয়ে নাবালেগ শিশুদের ছিয়াম পালন করানোতে কোন বাধা নেই। রুবায়ি‘ বিনতে মু‘আওবিয (রাঃ) হ’তে বর্ণিত তিনি বলেন, আশূরার দিন সকালে আল্লাহর রাসূল (ছাঃ) আনছারদের সকল পল্লীতে এ নির্দেশ জারী করলেন যে, যে ব্যক্তি ছওম পালন করেনি সে যেন দিনের … Continue reading

Posted in ছিয়াম শিশুদের জোর করে পালন করানো যাবে কি? | Tagged

ছিয়াম অবস্থায় তরকারীর স্বাদ চেখে দেখলে ছিয়ামের কোন ক্ষতি হবে কি?


না। তবে স্বাদ চাখার সময় যাতে কণ্ঠনালীতে প্রবেশ না করে, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। ইবনু আববাস (রাঃ) বলেন, ছিয়াম অবস্থায় ঝোল বা কোন বস্ত্তর স্বাদ আস্বাদনের সময় হলক্ব বা কণ্ঠনালীতে প্রবেশ না করলে কোন ক্ষতি নেই’ (মুছান্নাফ ইবনু আবী শায়বাহ, ইরওয়াউল … Continue reading

Posted in ছিয়াম অবস্থায় তরকারীর স্বাদ চেখে দেখলে ছিয়ামের কোন ক্ষতি হবে কি?, তরকারীর স্বাদ ছিয়াম অবস্থায় চেখে দেখলে ছিয়ামের কোন ক্ষতি হবে কি? | Tagged

ছিয়াম অবস্থায় মযী নির্গত হ’লে ছিয়াম বিনষ্ট হবে কি?


না। এতে ছিয়ামের কোন ক্ষতি হবে না। কারণ এ ব্যাপারে কোন দলীল নেই। আর এর মাধ্যমে কেবল ওযূ বিনষ্ট হয় (বুঃ মুঃ মিশকাত হা/৩০২)। আর ওযূ নষ্ট হ’লে ছিয়াম নষ্ট হয় না (ফাতাওয়া লাজনা দায়েমা ১০/২৭৩; উছায়মীন, শারহুল মুমতে‘ ৬/২৩৬)।

Posted in ছিয়াম অবস্থায় মযী নির্গত হ’লে ছিয়াম বিনষ্ট হবে কি? | Tagged

ফরয গোসল না করে সাহারী খাওয়ায় কোন বাধা আছে কি?


কোন বাধা নেই। নাপাক অবস্থায় ঘুম থেকে উঠে শুধু সাহারী খাওয়ার সময় অবশিষ্ট থাকলে বিনা গোসলেই সাহারী খাবে। অতঃপর গোসল করে ফজরের ছালাত আদায় করবে (হাইআতু কিবারিল ওলামা ১/৪২৬ পৃঃ)। তবে সাহারী খাওয়ার সুযোগ নেই এমন সময় ঘুম ভাঙলে গোসল করে … Continue reading

Posted in ফরয গোসল না করে সাহারী খাওয়ায় কোন বাধা আছে কি?, সাহারী ফরয গোসল না করে খাওয়ায় কোন বাধা আছে কি? | Tagged

জনৈক নারী ২০ বছর যাবৎ ফরয ছিয়াম নিয়মিতভাবে আদায় করে আসলেও হায়েয অবস্থায় কোন ছিয়াম পালন করেনি। বর্তমানে এজন্য সে অনুতপ্ত। এক্ষণে তার করণীয় কি?


ঐ নারী আল্লাহর নিকটে অনুতপ্ত হৃদয়ে ক্ষমা প্রার্থনা করবে এবং উক্ত ছিয়ামগুলির ক্বাযা আদায় করবে। কেননা আয়েশা (রাঃ) বলেন, আমাদেরকে ঋতুকালীন সময়ে ছিয়ামের ক্বাযা আদায়ের নির্দেশ দেওয়া হ’ত। কিন্তু ছালাতের ক্বাযা আদায়ের আদেশ দেওয়া হ’ত না (মুসলিম হা/৩৩৫; মিশকাত হা/২০৩২; ফাতাওয়া … Continue reading

Posted in হায়েযের ক্বাযা ছিয়াম পালন করতে হবে কি? | Tagged

রামাযান মাসে সফর অবস্থায় ছিয়াম পালন থেকে বিরত থাকা যরূরী কি?


রামাযান মাসে সফর অবস্থায় ছিয়াম রাখা বা ছাড়া উভয়টিই জায়েয। আবু সাঈদ খুদরী, আনাস, ইবনু আববাস (রাঃ) সহ অনেক ছাহাবী থেকে বর্ণিত হয়েছে যে, রাসূল (ছাঃ)-এর সাথে সফরকালে তিনি ছিয়াম পালনকারী বা পরিত্যাগকারী কাউকেই দোষারোপ করেননি। বরং তিনি কখনো রাখতেন … Continue reading

Posted in রামাযান মাসে সফর অবস্থায় ছিয়াম পালন থেকে বিরত থাকা যরূরী কি? | Tagged

ফজরের আযান দেওয়া অবস্থায় সাহারী খাওয়া শুরু করে ছালাত শেষ হওয়া পর্যন্ত খাবার খেয়েছি। আমাদের ছিয়াম কবুল হবে কি?


এমতাবস্থায় ছিয়াম হবে না। বরং ভুলবশতঃ এরূপ করে ফেললে ক্বাযা আদায় করতে হবে। আল্লাহ তা‘আলা বলেন, ‘তোমরা (রামাযানের রাতে) খানাপিনা কর, যতক্ষণ না (রাত্রির) কালো রেখা হ’তে ভোরের শুভ্ররেখা স্পষ্ট হয়(বাক্বারাহ ২/১৮৭)। তবে আযানের পূর্বে খাওয়া শুরু করলে আযান শুরু … Continue reading

Posted in সাহারী ফজরের আযান দেওয়া অবস্থায় খাওয়া শুরু করলে ছিয়াম হবে কি? | Tagged

সাহারী খাওয়ার পূর্বে সিগারেট-তামাক, গুল-জর্দা খেয়ে আমাদের এলাকায় অনেকে ছিয়াম পালন করে। তাদের ছিয়াম কবুলযোগ্য হবে কি?


ছিয়াম পালনের ফরযিয়াত আদায় হয়ে যাবে। কারণ সে ছিয়ামের শর্ত পূর্ণ করেছে। তবে হারাম খাদ্য খাওয়ার কারণে সে গুনাহগার হবে এবং তার ছিয়াম ত্রুটিপূর্ণ হবে। কেননা রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) বলেছেন, যে ব্যক্তি মিথ্যা কথা ও তার উপর আমল করা ছাড়তে পারল … Continue reading

Posted in সাহারী খাওয়ার পূর্বে সিগারেট-তামাক গুল-জর্দা খেলে রোজা হবে কি? | Tagged ,

ফজরের আযানের কতক্ষণ পূর্বে সাহারীর আযান দিতে হবে?


উভয় সময়ের মধ্যে এমন পার্থক্য থাকবে, যাতে একজন ব্যক্তি সহজে ফজরের আযানের পূর্বে প্রয়োজনে রান্না ও খাদ্য গ্রহণ সম্পন্ন করতে পারে। তা একঘণ্টা বা তার কিছু কমবেশী হ’তে পারে। যাতে মানুষ বুঝতে পারে যে ফজরের সময় ঘনিয়ে এসেছে। রাসূলুল্লাহ (ছাঃ)-এর … Continue reading

Posted in সাহারীর ফজরের আযানের কতক্ষণ পূর্বে আযান দিতে হবে? | Tagged ,

নফল ছিয়ামের মধ্যে কোনটি অধিক উত্তম; আইয়ামে বীয না সোম ও বৃহস্পতিবারের ছিয়াম?


সপ্তাহে দু’টি ছিয়াম পালন এবং মাসের আইয়ামে বীযের ছিয়াম উভয়ই উত্তম আমল। দু’টির মধ্যে ছওয়াবের দিক দিয়ে উত্তম-অনুত্তম ভাগ করার অধিকার বান্দার নেই। তবে স্বাস্থ্যগত দিক বিবেচনায় সোমবার ও বৃহস্পতিবার সপ্তাহে দু’দিন ছিয়াম রাখা উত্তম। সপ্তাহে সোম ও বৃহস্পতিবার ছিয়াম … Continue reading

Posted in ছিয়াম কোনটি উত্তম; আইয়ামে বীয না সোম ও বৃহস্পতিবারের ছিয়াম? | Tagged

রামাযান মাসে মাসিকের জন্য বাদ পড়া ছিয়ামগুলি পরবর্তীতে রাখতে হবে কি? রাখা গেলে তা শাওয়াল মাসের ছিয়ামের সাথে রাখা যাবে কি?


অসুস্থতা বা সফরের কারণে ছুটে যাওয়া ছিয়ামসমূহ পরবর্তীতে আদায় করতে হবে (বাক্বারাহ ২/১৮৪; বুখারী হা/৩২১; মুসলিম হা/৩৩৫; মিশকাত হা/২০৩২)। উক্ত ছিয়ামগুলি শাওয়াল মাসের ছয়টি ছিয়াম আদায় করার পরে করবে (বুখারী হা/১৯৫০; মুসলিম হা/১১৪৬; মিশকাত হা/২০৩০)।

Posted in রামাযান মাসে বাদ পড়া ছিয়ামগুলি শাওয়াল মাসের ছিয়ামের সাথে রাখা যাবে কি? | Tagged

শ্রমিক হিসাবে প্রতিদিন হাড়ভাঙ্গা খাটুনি করে পিতা-মাতা, স্ত্রী-সন্তানদের খাওয়ার ব্যবস্থা করতে হয়। সেজন্য ছিয়াম রাখা সম্ভব হয় না। এজন্য আমাকে গোনাহগার হ’তে হবে কি?


ফরয ত্যাগ করার কারণে কবীরা গুনাহগার হ’তে হবে (বাক্বারাহ ২/১৮৩; বুখারী হা/৮; মিশকাত হা/৪)। অতএব কষ্ট করে হ’লেও ছিয়াম পালন করতে হবে।

Posted in ছিয়াম রাখা সম্ভব না হলে গোনাহগার হ’তে হবে কি? | Tagged

জনৈক আলেম বলেন, আশূরার ছিয়াম নূহ (আঃ)-এর যুগ থেকে চলে আসছে। তিনি অত্যাচারী কওম থেকে মুক্তি লাভের শুকরিয়া স্বরূপ তা পালন করতেন। একথার সত্যতা জানতে চাই।


একথা সঠিক নয়। উক্ত মর্মে বর্ণিত হাদীছটি যঈফ (আহমাদ হা/৮৭০২, সিলসিলা যঈফাহ হা/১৪৯৯-এর আলোচনা দ্রঃ)। আশূরার ছিয়াম ফেরাঊনের কবল থেকে নাজাতে মূসা (আঃ)-এর শুকরিয়া হিসাবে মূসা, ঈসা ও মুহাম্মাদী শরী‘আতে পালিত হয় (বুখারী হা/৪৭৩৭; মুসলিম হা/১১৩০)।

Posted in আশূরার ছিয়াম কখন থেকে পালন করা হয়? | Tagged

রামাযান মাসে দিনের বেলা স্ত্রী সহবাস করলে স্বামী-স্ত্রী উভয়কে কাফফারা দিতে হবে, না কেবল স্বামী দিলেই যথেষ্ট হবে?


স্বামী স্ত্রী উভয়ে এতে সম্মত থাকলে উভয়কে কাফফারা ও কাযা আদায় করতে হবে (বুখারী হা/১৯৩৬; মুসলিম হা/১১১১; মিশকাত হা/২০০৪; আব্দুল্লাহ বিন বায, মাজমূ ফাতাওয়া ১৫/৩০৭)। উক্ত ছিয়াম কাযা আদায় করতে হবে এবং কাফফারা দিতে হবে। এর কাফফারা হ’ল- ১- একজন দাস … Continue reading

Posted in রামাযান মাসে দিনের বেলা সহবাস করলে উভয়কে কাফফারা দিতে হবে কি? | Tagged ,

ছিয়াম অবস্থায় দাঁত তোলায় শরী‘আতে কোন বাধা আছে কি?


ছিয়ামরত অবস্থায় প্রয়োজনে দাঁত তোলা যেতে পারে। যেমন রাসূল (ছাঃ) ছিয়ামরত অবস্থায় শিঙ্গা লাগিয়েছেন (মুত্তাফাক্ব আলাইহ, মিশকাত হা/২০০২)।

Posted in ছিয়াম অবস্থায় দাঁত তোলায় শরী‘আতে কোন বাধা আছে কি? | Tagged

কিডনী রোগের কারণে ডায়ালাইসিস করতে হয়। এমতাবস্থায় ফরয ছিয়াম পালন করা যাবে কি?


এমতাবস্থায় ছিয়াম পালনে কোন বাধা নেই। কারণ ডায়ালাইসিস ছিয়াম ভঙ্গের কারণ নয়। এটা শিঙ্গা লাগানোর ন্যায়। ইবনু আববাস (রাঃ) বলেন, নবী করীম (ছাঃ) ছিয়াম অবস্থায় (রোগমুক্তির জন্য) শিঙ্গা লাগাতেন (বুখারী হা/১৯৩৮, ১৯৩৯)। তবে যদি ছিয়াম পালন কষ্টকর হয়, তাহ’লে ছিয়াম ছেড়ে … Continue reading

Posted in ছিয়াম ডায়ালাইসিস করলে ভেঙ্গে যাবে কি? | Tagged

শাওয়াল মাসের ৬টি ছিয়াম রাখার ফযীলত কি? এগুলি কি ধারাবাহিকভাবে আদায় করতে হবে? কারণবশতঃ উক্ত মাসে আদায় করতে না পারায় পরের মাসে ক্বাযা আদায় করলে কি এর নেকী পাওয়া যাবে?


রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) বলেন, ‘যে ব্যক্তি রামাযানের ছিয়াম পালন শেষে শাওয়াল মাসের ছয়টি ছিয়াম পালন করল, সে যেন সারা বছর ছিয়াম পালন করল’ (মুসলিম হা/১১৬৪; মিশকাত হা/২০৪৭)। অন্য হাদীছে এক বছরের হিসাব রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) এভাবে দিয়েছেন যে, ‘রামাযানের একমাস ছিয়াম (১০ গুণ … Continue reading

Posted in শাওয়াল মাসের ৬টি ছিয়াম রাখার ফযীলত কি? | Tagged

রামাযান মাসে লায়লাতুল ক্বদরের বেজোড় রাত্রিগুলোতে ওয়ায-নছীহত করে তারপর ইবাদত করা হয়। এই রাতে ওয়ায করে সময় ব্যয় করা কি হাদীছ সম্মত?


ক্বদরের রাত্রি তথা রামাযানের শেষ দশ দিনের বেজোড় রাত্রিগুলোতে ওয়ায-নছীহত করার কোন প্রমাণ পাওয়া যায় না। রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) রামাযান মাসের ২৩, ২৫ ও ২৭ তারিখ তিনদিন মসজিদে নববীতে জামা‘আত সহকারে তারাবীহ পড়েছিলেন। উক্ত তিনদিনের প্রথম দিন রাতের এক-তৃতীয়াংশ পর্যন্ত, ২য় … Continue reading

Posted in ক্বদরের বেজোড় রাত্রিগুলোতে ওয়ায-নছীহত করা যাবে কি? | Tagged ,

চাঁদ উঠেছে এই ধারণায় ছিয়াম রাখি। কিন্তু পরেরদিন যদি জানতে পারি যে চাঁদ উঠেনি। সেক্ষেত্রে আমার করণীয় কি?


নিশ্চিত হ’লে ছিয়াম ছেড়ে দিতে হবে এবং ৩০ শা‘বান পূর্ণ করতে হবে। কেননা সন্দেহের উপর ছিয়াম পালন করা জায়েয নয়। আব্দুল্লাহ ইবনু ওমর (রাঃ) বলেন, রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) বলেছেন, ‘চাঁদ না দেখা পর্যন্ত তোমরা ছিয়াম ও ইফতার করবে না। যদি মেঘের … Continue reading

Posted in রোজা রাখার পর জানতে পারি চাঁদ উঠেনি তাহলে করণীয় কি? | Tagged

জনৈক ব্যক্তি রামাযান মাসে ৪০০/৫০০ ছায়েমকে ইফতার করাবেন বলে নিয়ত করেছেন। এরূপ নিয়ত করা কি শরী‘আত সম্মত?


এমন নিয়ত করা শরী‘আত সম্মত। কারণ কোন ব্যক্তি যদি ছওয়াবের উদ্দেশ্য ছিয়াম পালনকারীকে ইফতার করায়, তাহ’লে সে প্রভূত নেকীর হকদার হবেন। রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) বলেছেন, مَنْ فَطَّرَ صَائِمًا كَانَ لَهُ مِثْلُ أَجْرِهِمْ مِنْ غَيْرِ أَنْ يَنْقُصَ مِنْ أُجُورِهِمْ شَيْئًا ‘যে ব্যক্তি … Continue reading

Posted in রামাযান মাসে ৪০০/৫০০ ছায়েমকে ইফতার করানো শরী‘আত সম্মত কি? | Tagged

রামাযান মাসে দিনের বেলায় কেউ যদি ভুল করে পূর্ণরূপে খাদ্যগ্রহণ করে ফেলে, তাহ’লে সে কি ঐ ছিয়াম পূর্ণ করবে, নাকি পরে তার ক্বাযা আদায় করবে?


ছায়েম ভুল বশতঃ পেট ভরে বা সামান্য পরিমাণে খেয়ে ফেললে ছিয়ামের কোন ক্ষতি হবে না। ফলে পরে তার ক্বাযা আদায় করার কোন প্রয়োজন নেই। আবু হুরায়রা (রাঃ) হ’তে বর্ণিত, রাসুল (ছাঃ) এরশাদ করেন, ‘ছিয়াম অবস্থায় কেউ যদি ভুল করে পানাহার … Continue reading

Posted in রামাযান মাসে দিনের বেলায় কেউ খাদ্যগ্রহণ করে ফেললে ছিয়াম পূর্ণ করবে কি? | Tagged ,

ফরয ছিয়ামরত অবস্থায় ইচ্ছাকৃত পানাহার করলে তার জন্য কাফফারা কি হবে?


উক্ত অবস্থায় সে ক্বাযা আদায় করবে। কেননা রাসূল (ছাঃ) বলেন, ছিয়াম অবস্থায় যে ব্যক্তি ইচ্ছাকৃতভাবে বমি করে, সে যেন তার ক্বাযা আদায় করে’ (তিরমিযী হা/৭২০, মিশকাত হা/২০০৭, সনদ ছহীহ; ফিক্বহুস সুন্নাহ ১/৪২৬-২৭)।

Posted in ছিয়ামরত অবস্থায় ইচ্ছাকৃত পানাহার করলে তার জন্য কাফফারা কি হবে? | Tagged

মক্কা ও মদীনায় মাসব্যাপী রামাযানের ছিয়াম পালন করার বিশেষ কোন ফযীলত আছে কি?


মক্কা ও মদীনায় ছিয়াম পালনের বিশেষ কোন ফযীলত নেই। এ মর্মে যা বর্ণিত আছে, তার সবগুলোই যঈফ ও জাল’ (ইবনু মাজাহ হা/৩১১৭; যঈফুল জামে‘ হা/৩৫২২, ৫৩৫৫, ৩১৩৯; যঈফাহ হা/৮৩১, ৮৩২; যঈফ তারগীব হা/৫৮৫)।

Posted in ছিয়াম মক্কা ও মদীনায় মাসব্যাপী পালন করার বিশেষ কোন ফযীলত আছে কি? | Tagged

কোন অসুস্থ বা মৃত ব্যক্তির অনেক বছরের ক্বাযা ছিয়াম বা ক্বাযা ছালাত তার সন্তান আদায় করে দিতে কিংবা ফিদইয়া দিতে পারবে কি?


অনেক বছরের ক্বাযা ছালাত ও ছিয়ামের জন্য অসুস্থ ব্যক্তি নিজে আল্লাহর নিকটে ক্ষমা প্রার্থনা করবেন। আর মৃত ব্যক্তির সন্তানেরা অনুতপ্ত হৃদয়ে তার জন্য আল্লাহর নিকট ক্ষমা প্রার্থনা করবে (যুমার ৩৯/৫৩)। কেননা ‘আল্লাহ কাউকে তার সাধ্যাতীত কোন কাজের ভার দেন না…’ (বাক্বারাহ ২৮৬)। … Continue reading

Posted in ছালাত ক্বাযা হলে অন্য কেউ আদায় করে দিতে পারবে কি?, মৃত ব্যক্তির ক্বাযা ছিয়াম বা ছালাত তার সন্তান আদায় করে দিতে পারবে কি? | Tagged ,