Tag Archives: ছিয়াম

আইয়ামে বীযের ছিয়াম এবং শাওয়ালের ৬টি ছিয়াম কি এক নিয়তের মধ্যে শামিল করা যাবে?


আইয়ামে বীয ও শাওয়ালের ছিয়াম দু’টি পৃথক ইবাদত। একই নিয়তের মধ্যে শামিল করার কোন দলীল পাওয়া যায় না। সুতরাং পৃথক নিয়তে স্বতন্ত্রভাবে দু’টি ইবাদত পালন করতে হবে (ছালেহ ফাওযান, আল-মুনতাকা ৫১/২৫)। তবে কেউ যদি আইয়ামে বীযের দিনগুলোতে কিংবা  সোমবার ও বৃহঃস্পতিবারে … Continue reading

Posted in শাওয়ালের এবং আইয়ামে বীযের ছিয়াম কি এক নিয়তের মধ্যে শামিল করা যাবে? | Tagged ,

আমি পাইল্সের রোগী হওয়ায় পায়খানার রাস্তা দিয়ে রক্ত বের হয়। এতে আমার ছিয়াম ভেঙ্গে যাবে কি?


ছিয়াম ভঙ্গ হবে না। কারণ রক্ত বের হওয়া ছিয়াম ভঙ্গের কোন কারণ নয়। আর রাসূল (ছাঃ) ছিয়ামরত অবস্থায় তাঁর দেহে শিঙ্গা লাগিয়েছেন (বুখারী হা/১৯৩৮; মিশকাত হা/২০০২)।

Posted in পায়খানার রাস্তা দিয়ে রক্ত বের হলে ছিয়াম ভেঙ্গে যাবে কি? | Tagged ,

জনৈকা মহিলা বিগত বছরের কিছু ক্বাযা ছিয়াম পালন করেনি। যখন স্মরণ হয়েছে তখন পরবর্তী রামাযান উপস্থিত। এক্ষণে তাকে রামাযানের ছিয়াম না ক্বাযা ছিয়াম সর্বাগ্রে আদায় করতে হবে?


এমন অবস্থায় তাকে সর্বাগ্রে রামাযানের ছিয়াম পালন করতে হবে এবং পূর্বের ছুটে যাওয়া ছিয়াম রামাযানের পরে আদায় করবে। সাথে সাথে কাযা আদায়ে দেরী করে ফেলার জন্য আল্লাহর নিকট ক্ষমা প্রার্থনা করবে (নববী, আল মাজমূ‘ ৩/৩৬৬; উছায়মীন, আশ-শারহুল মুমতে‘ ৬/৪৫১)।

Posted in রামাযানের ছিয়াম না ক্বাযা ছিয়াম সর্বাগ্রে আদায় করতে হবে? | Tagged

জনৈক আলেম বলেন, সূরা বাক্বারাহ ১৮৫ আয়াতটি রহিত হয়ে গেছে। অতএব কোন ব্যক্তি ছিয়াম পালন করতে সক্ষম না হ’লে তাকে ফিদইয়া দিতে হবে না। উক্ত বক্তব্য কি সঠিক?


উক্ত বক্তব্য সঠিক নয়। ইমাম বুখারী হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আববাস (রাঃ) হ’তে বর্ণনা করেন, তিনি বলেন যে, উক্ত আয়াতটি ‘মানসূখ’ নয়। বরং এর অর্থ হ’ল, যাদের ছিয়াম রাখার ক্ষমতা নেই যেমন অতি বৃদ্ধ ও বৃদ্ধা, তারা প্রতিদিনের ছিয়ামের বদলে একজন … Continue reading

Posted in ছিয়াম পালন করতে সক্ষম না হ’লে তাকে ফিদইয়া দিতে হবে না কি?, সূরা বাক্বারাহ ১৮৫ আয়াতটি রহিত হয়ে গেছে কি? | Tagged ,

‘শাওয়াল মাসের ৬টি ছিয়াম পালন করলে সারা বছরের ছিয়াম পালন করা হয়’ -এর তাৎপর্য কি।


রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) বলেছেন, ‘যে ব্যক্তি রামাযানের ছিয়াম পালন শেষে শাওয়াল মাসের ৬টি ছিয়াম পালন করল, সে যেন সারা বছর ছিয়াম পালন করল’ (মুসলিম, মিশকাত হা/২০৪৭)। হাদীছটির ব্যাখ্যা এসেছে অন্য বর্ণনায়, যেখানে তিনি বলেন, আল্লাহ তা‘আলা প্রত্যেক সৎকর্মের জন্য ১০ গুণ নেকী … Continue reading

Posted in শাওয়াল মাসের ৬টি ছিয়াম পালন করলে সারা বছরের ছিয়াম পালন করা হয় কি। | Tagged

রামাযান মাসে মিথ্যা কথা বললে বা মিথ্যা সাক্ষ্য দিলে কি ছওম ভঙ্গ হয়ে যাবে?


ছওম ভঙ্গ হবে না। তবে এতে তার ছওম ক্ষতিগ্রস্ত হবে এবং নেকী কমে যাবে। রাসূল (ছাঃ) বলেন, ‘যে ব্যক্তি মিথ্যা কথা ও কর্ম ছাড়ল না তার খানাপিনা ত্যাগ করায় আল্লাহর কোন প্রয়োজন নেই’ (বুখারী, মিশকাত হা/১৯৯৯)। অত্র হাদীছের ব্যাখ্যায় আযীমাবাদী বলেন, … Continue reading

Posted in রামাযান মাসে মিথ্যা কথা বললে বা মিথ্যা সাক্ষ্য দিলে কি ছওম ভঙ্গ হয়ে যাবে? | Tagged ,

আমি বাংলাদেশ থেকে মক্কায় গিয়ে তাদের সাথে ঈদ করেছি। এতে আমার ২৮টি ছিয়াম হয়েছে। এক্ষণে আমার একটি ছিয়ামের জন্য করণীয় কি?


এক্ষেত্রে সেদেশের হিসাব অনুযায়ী আরেকটি ছিয়ামের ক্বাযা আদায় করবে। কারণ আরবী মাস ২৯ বা ৩০ দিনে হয় (বুখারী হা/১৯১০, ১৯১৩; নাসাঈ হা/২১৩৮; বাক্বারাহ ২/১৮৪; বিন বায, মাজমূ‘ ফাতাওয়া ১৫/১৫৮; উছায়মীন, মাজমূ‘ ফাতাওয়া ১৯/৪৮, ৪৯,৭২, ৭৩)।

Posted in বিদেশ ভ্রমন করার কারনে আমার ২৮টি ছিয়াম হয়েছে। এক্ষণ আমার করণীয় কি? | Tagged

ঔষধ খেয়ে মাসিক বন্ধ করে ছিয়াম পালন করা জায়েয কি?


নাপাকীর দিনগুলিতে ছিয়াম ছেড়ে দিয়ে অন্য দিনে তা পালন করাই সুন্নাত। আয়েশা (রাঃ) বলেন, ঋতু অবস্থায় আমাদেরকে ছিয়াম ক্বাযা করার এবং ছালাত ছেড়ে দেয়ার আদেশ দেওয়া হ’ত (মুসলিম, মিশকাত হা/২০৩২, ‘ক্বাযা ছিয়াম’ অনুচ্ছেদ)। তবে বিশেষ অবস্থার প্রেক্ষিতে ডাক্তারের পরামর্শে শারীরিক কোন … Continue reading

Posted in মাসিক ঔষধ খেয়ে বন্ধ করে ছিয়াম পালন করা জায়েয কি? | Tagged ,

রামাযান মাসে কোন ব্যক্তি যদি স্ত্রী মিলনরত অবস্থায় ফজরের আযান শুনতে পায় তাহলে কি করবে?


এমতাবস্থায় যদি সে সঙ্গে সঙ্গে এথেকে বিরত হয়, তাহ’লে তার ছওম অক্ষুণ্ণ থাকবে। কিন্তু যদি সে ঐ অবস্থাতেই থাকে, তাহ’লে তার ছওম বাতিল হবে এবং তার উপর ক্বাযা ও কাফফারা ওয়াজিব হবে (নববী, আল-মাজমূ‘ ৬/৩০৯; ইবনু কুদামা, মুগনী ৩/১৩৯)। তা হ’ল, … Continue reading

Posted in রামাযান মাসে স্ত্রী মিলনরত অবস্থায় ফজরের আযান শুনতে পেলে করণীয় কি? | Tagged ,

ছিয়ামরত অবস্থায় ইনজেকশনের মাধ্যমে ঔষধ বা স্যালাইন দেওয়া হলে ছিয়াম ভঙ্গ হবে কি?


যে সব ইনজেকশন শুধুমাত্র ঔষধ হিসাবে প্রয়োগ করা হয়, সেসব ইনজেকশন ছিয়াম অবস্থায় নেয়া যায়। রাসূল (ছাঃ) ছিয়ামরত অবস্থায় শিঙ্গা লাগিয়েছেন (মুত্তাফাক্ব আলাইহ, মিশকাত হা/২০০২)। আর যে সব ইনজেকশন খাদ্য হিসাবে প্রয়োগ করা হয়, তা জায়েয নয়। কারণ ছিয়াম মূলতঃ আহার … Continue reading

Posted in ছিয়ামরত অবস্থায় ইনজেকশন নেওয়া যাবে কি? | Tagged

ছিয়াম অবস্থায় মযী নির্গত হ’লে ছিয়ামে কোন ক্ষতি হবে কি? এছাড়া নাকে পানি প্রবেশ করলে ছিয়াম ভেঙ্গে যাবে কি?


মযী নির্গত হলে ছিয়াম ভঙ্গ হবে না (উছায়মীন, আশ-শারহুল মুমতে‘ ৬/৩৭৫-৭৬)। আর অনিচ্ছাকৃতভাবে নাকে পানি প্রবেশ করলে ছিয়ামের ক্ষতি হবে না (মুত্তাফাক্ব আলাইহ, মিশকাত হা/২০০৩)। তবে রাসূল (রাঃ) ছিয়াম অবস্থায় নাকে এমনভাবে পানি নিতে নিষেধ করেছেন, যাতে ভিতরে পানি প্রবেশের সম্ভাবনা থাকে (আবুদাঊদ, … Continue reading

Posted in ছিয়াম অবস্থায় মযী নির্গত হ’লে ছিয়ামে কোন ক্ষতি হবে কি? | Tagged

ছিয়াম অবস্থায় মিসওয়াক করা যাবে কি?


ছিয়াম অবস্থায় মিসওয়াক করা যাবে। রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) বলেন, আমি যদি উম্মতের জন্য কষ্টকর মনে না করতাম তাহলে প্রত্যেক ছালাতের সময় মিসওয়াক করার আদেশ দিতাম’ (মুত্তাফাক্ব আলাইহ, মিশকাত হা/৩৭৬ ‘মিসওয়াক’ অনুচ্ছেদ)। উক্ত হুকুম দ্বারা ছিয়াম পালনকারী বা ছিয়ামহীন কাউকে খাছ করা হয়নি (বুখারী … Continue reading

Posted in ছিয়াম অবস্থায় মিসওয়াক করা যাবে কি? | Tagged ,

নফল ছিয়াম কারণবশতঃ ভেঙ্গে ফেললে পরে ক্বাযা আদায় করা ওয়াজিব কি?


নফল ছিয়াম কারণবশতঃ ছেড়ে দিলে তার ক্বাযা আদায় করা মুস্তাহাব। আবু সাঈদ খুদরী (রাঃ) বলেন, আমি রাসূল (ছাঃ)-এর জন্য খানা প্রস্ত্তত করলাম। অতঃপর তিনি এবং তাঁর ছাহাবীগণ আসলেন। যখন খানা পেশ করলাম তখন তাদের মধ্য হ’তে একজন ছাহাবী বললেন, আমি … Continue reading

Posted in নফল ছিয়াম ভেঙ্গে ফেললে পরে ক্বাযা আদায় করা ওয়াজিব কি? | Tagged

একটি ইসলামী পত্রিকার প্রশ্নোত্তরে বলা হয়েছে যে, মুহাররম মাসের ৯-১১ মোট তিনদিন ছিয়াম পালন করা উত্তম ও পরিপূর্ণ পদ্ধতি। একথা সত্য কি?


একথা ঠিক নয়। বরং মুহাররম মাসের নবম ও দশম এ দু’দিন ছিয়াম পালন করাই সর্বোত্তম। কারণ রাসূল (ছাঃ) ইহূদীদের খেলাফ করার জন্য দশম দিনের সাথে নবম দিন যোগ করে মোট দু’দিন ছিয়াম পালনের আকাংখা প্রকাশ করেছিলেন (মুসলিম হা/১১৩৪; মিশকাত হা/২০৪১)। ইবনু … Continue reading

Posted in মুহাররম মাসের ৯-১১ মোট তিনদিন ছিয়াম পালন করা উত্তম কি? | Tagged

জনৈক ব্যক্তি বলেন ছহীহ বুখারীতে হাদীছ আছে যে, মাথায় উকুন হ’লে ৩ দিন ছিয়াম বা ৬ জন মিসকীনকে অর্ধ ছা‘ করে খাওয়ালে মাথার উকুন থাকবে না। একথা কি সত্য?


এরূপ কোন নির্দেশনা ছহীহ বুখারী বা অন্য কোন হাদীছ গ্রন্থে নেই। তথ্যদাতা সম্ভবতঃ হজ্জের বিধান সংশ্লিষ্ট ছহীহ বুখারীর একটি হাদীছ দেখে ভ্রমে পতিত হয়েছেন। হাদীছটি হ’ল- আব্দুল্লাহ ইবনু মা‘ক্বিল (রহঃ) হ’তে বর্ণিত তিনি বলেন, আমি কা‘ব ইবনু উজরা (রাঃ)-এর পাশে … Continue reading

Posted in মাথায় উকুন হ’লে ৩ দিন ছিয়াম রাখলে মাথার উকুন থাকবে না। একথা কি সত্য? | Tagged ,

শাওয়াল মাসের ছিয়াম ধারাবাহিকভাবে রাখতে হবে কি? এছাড়া কারণবশতঃ এ মাসের মধ্যে সবকয়টি রাখা সম্ভব না হলে পরের মাসে ক্বাযা আদায় করা যাবে কি?


রামাযানের পর পরই শাওয়াল মাসের ছয়টি ছিয়াম ধারাবাহিকভাবে রাখা উত্তম। তবে কেউ যদি মাঝে মধ্যে ছিয়াম বাদ দেয় তাতে কোন দোষ নেই। মোটকথা শাওয়াল মাসের এই ছিয়াম পালনের নেকী অর্জনের জন্য এ মাসের মধ্যেই ছয়টি ছিয়াম পালন করতে হবে।

Posted in শাওয়াল মাসের ছিয়াম ধারাবাহিকভাবে রাখতে হবে কি? | Tagged ,

আমি প্রতি বৃহষ্পতিবার রোযা রাখি। ঘটনাক্রমে ১২ ই যিলহজ্জ বৃহষ্পতিবার পড়েছে এবং সেদিন আমি রোযা রেখেছি। আমি জুমার দিন শুনেছি যে, তাশরিকের দিনগুলোতে রোযা রাখা নাজায়েয। বৃহষ্পতিবার ছিল তাশরিকের তৃতীয় দিন। আমি যে, রোযা রেখেছি সে কারণে আমার উপরে কি কোন কিছু বর্তাবে? সত্যিকার-ই কি তাশরিকের দিনগুলোতে রোযা রাখা নাজাযেয; নাকি শুধু ঈদের প্রথম দিন আমরা রোযা রাখব না?


দুই ঈদের দিন রোযা রাখা হারাম। দলিল হচ্ছে আবু সাঈদ খুদরি (রাঃ) এর হাদিস; তিনি বলেন: “নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আযহার দিন রোযা রাখতে বারণ করেছেন”।[সহিহ বুখারী (১৯৯২) ও সহিহ মুসলিম (৮২৭)]। আলেমগণ ইজমা করেছেন … Continue reading

Posted in তাশরিকের দিনগুলোতে রোযা রাখার বিধান কি? | Tagged ,

পেশায় নাবিক হওয়ায় আমাকে এক বছরের জন্য জাহাযে যেতে হয় এবং বিভিন্ন দেশে মালামাল পরিবহন করতে হয়। প্রত্যেক বন্দরে সর্বোচ্চ পাঁচদিন অবস্থান করা যায়। জাহাযে ছিয়াম পালন আমার জন্য খুবই কষ্টকর হয়। এক্ষণে ফরয ছিয়াম পালন থেকে বিরত থাকা যাবে কি? এছাড়া নিয়মিতভাবে ছালাত ক্বছর করা যাবে কি?


ফরয ছিয়াম সাধ্যপক্ষে পালন করার চেষ্টা করতে হবে। কষ্টকর হ’লে ছেড়ে দিবে এবং পরবর্তীতে ক্বাযা আদায় করবে। আল্লাহ বলেন, তোমাদের মধ্যে যে ব্যক্তি পীড়িত হবে অথবা সফরে থাকবে, সে যেন এটি অন্য সময় পালন করে (বাক্বারাহ ২/১৮৪)। একবার সফরে থাকা অবস্থায় … Continue reading

Posted in ছালাত নিয়মিতভাবে ক্বছর করা যাবে কি?, ছিয়াম হতে বিরত থাকা যাবে কি কষ্টের কারনে? | Tagged ,

মাথা ব্যথার কারণে ডাক্তার আমাকে গরম পানিতে ঔষধ মিশিয়ে নাকে ভাপ নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। এতে আমার ছিয়াম ভঙ্গ হবে কি?


ভঙ্গ হবে না ইনশাআল্লাহ। এগুলি খাদ্য বা পানীয় নয় (ফাতাওয়া লাজনা দায়েমা ১০/২৭৫; উছায়মীন, মাজমূ‘ ফাতাওয়া ১৯/১৫৫)।

Posted in ছিয়াম রেখে গরম পানিতে ঔষধ মিশিয়ে নাকে ভাপ দেওয়া যাবে কি? | Tagged

ছিয়াম অবস্থায় ইচ্ছাকৃতভাবে বীর্যপাত করলে কাফফারা দিতে হবে কি?


রামাযান মাসে ইচ্ছাকৃত বীর্যপাত করালে ছিয়াম ভঙ্গ হয়ে যাবে। তবে এতে স্ত্রী সহবাসের ন্যায় কাফফারা দিতে হবে না। বরং সেই দিনের ক্বাযা আদায় করতে হবে এবং অধিকহারে তওবা-ইস্তিগফার করতে হবে। আর স্ত্রী সহবাসের সাথে এর তুলনা করা যাবে না (ইবনু কুদামা, … Continue reading

Posted in ছিয়াম অবস্থায় ইচ্ছাকৃতভাবে বীর্যপাত করলে কাফফারা দিতে হবে কি? | Tagged

জনৈক যুবক শারীরিক দুর্বলতার কারণে ছিয়াম রাখতে পারছে না। এক্ষণে তার জন্য করণীয় কি?


ছিয়াম ইসলামের পাঁচটি রুকনের অন্যতম। সুতরাং সম্ভবপর তা রাখার চেষ্টা করতে হবে। কোনভাবেই রাখা সম্ভব না হ’লে এটা রোগ হিসাবে গণ্য হবে। সেক্ষেত্রে তা গণনা করে রেখে পরবর্তীতে আদায় করবে। আল্লাহ বলেন, ‘আর যে ব্যক্তি পীড়িত হবে অথবা সফরে থাকবে … Continue reading

Posted in ছিয়াম শারীরিক দুর্বলতার কারণে রাখতে না পারলে করণীয় কি?, শারীরিক দুর্বলতার কারণে ছিয়াম রাখতে না পারলে করণীয় কি? | Tagged

একটি হাদীছে বর্ণিত হয়েছে যে, যে ব্যক্তি সন্দেহপূর্ণ দিনে ছিয়াম পালন করে, সে মুহাম্মাদ (ছাঃ)-এর অবাধ্যতা করল। কোন ছিয়ামের ক্ষেত্রে এটি প্রযোজ্য হবে?


এটি রামাযানের ছিয়ামের ক্ষেত্রে বলা হয়েছে। হাদীছটি হ’ল- তাবেঈ বিদ্বান ছিলাহ বিন যুফার (রহঃ) হ’তে বর্ণিত তিনি বলেন, একদা আমরা সন্দেহজনক দিনে ‘আম্মার (রাঃ)-এর নিকট ছিলাম। সেখানে একটি ভুনা বকরী পেশ করা হ’লে সেখানকার কিছু লোক (ছিয়াম রাখার কারণে) খাদ্য … Continue reading

Posted in সন্দেহপূর্ণ দিনে ছিয়াম পালন করলে মুহাম্মাদ (ছাঃ)-এর অবাধ্যতা করা হলো কি? | Tagged

ছিয়াম অবস্থায় ডায়াবেটিস রোগীদের ইনসুলিন গ্রহণের বিধান কি? বিশেষতঃ যাদের দিনে একাধিকবার গ্রহণের প্রয়োজন হয়।


ইফতারের পর ও সাহারীর পূর্বে ইনসুলিন নেওয়াই উত্তম। যদি এরপরেও প্রয়োজন হয়, সেটা দিনের বেলায় ছিয়াম অবস্থায় নিতে পারে। কেননা ইনসুলিন গ্রহণ করা ছিয়াম ভঙ্গের কারণ নয়। আর এটি কোন খাদ্য নয়। অনুরূপ হাঁপানী রোগের জন্য ছিয়াম অবস্থায় ‘ইনহেলার’ নেওয়া … Continue reading

Posted in ছিয়াম অবস্থায় ডায়াবেটিস রোগীদের ইনসুলিন নেওয়া যাবে কি? | Tagged

ছিয়াম অবস্থায় অসুখের কারণে ডুস ব্যবহার করা যাবে কি? এছাড়া চোখ, কান ও নাকের ঔষধ ব্যবহার করা যাবে কি?


যাবে। ডুস বা সাপোজিটরি যেহেতু খাদ্য নয়, খাদ্যের বিকল্পও নয় এবং তা পাকস্থলীতেও প্রবেশ করে না; বরং তা একপ্রকার ওষুধ, যা মলম বা ক্রীমের সঙ্গে তুলনা করা যায়। এর দ্বারা খাদ্যের কোন চাহিদা পূরণ হয় না। তাই এর দ্বারা ছিয়াম … Continue reading

Posted in ছিয়াম অবস্থায় অসুখের কারণে ডুস ব্যবহার করা যাবে কি?, ছিয়াম অবস্থায় চোখ কান ও নাকের ঔষধ ব্যবহার করা যাবে কি? | Tagged ,

অনেক পিতা-মাতা বাল্য অবস্থাতে শিশুদের ছিয়াম পালনের ব্যাপারে চাপ সৃষ্টি করেন। এভাবে ছিয়াম পালন করানো যাবে কি?


উৎসাহ দিয়ে নাবালেগ শিশুদের ছিয়াম পালন করানোতে কোন বাধা নেই। রুবায়ি‘ বিনতে মু‘আওবিয (রাঃ) হ’তে বর্ণিত তিনি বলেন, আশূরার দিন সকালে আল্লাহর রাসূল (ছাঃ) আনছারদের সকল পল্লীতে এ নির্দেশ জারী করলেন যে, যে ব্যক্তি ছওম পালন করেনি সে যেন দিনের … Continue reading

Posted in ছিয়াম শিশুদের জোর করে পালন করানো যাবে কি? | Tagged

ছিয়াম অবস্থায় তরকারীর স্বাদ চেখে দেখলে ছিয়ামের কোন ক্ষতি হবে কি?


না। তবে স্বাদ চাখার সময় যাতে কণ্ঠনালীতে প্রবেশ না করে, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। ইবনু আববাস (রাঃ) বলেন, ছিয়াম অবস্থায় ঝোল বা কোন বস্ত্তর স্বাদ আস্বাদনের সময় হলক্ব বা কণ্ঠনালীতে প্রবেশ না করলে কোন ক্ষতি নেই’ (মুছান্নাফ ইবনু আবী শায়বাহ, ইরওয়াউল … Continue reading

Posted in ছিয়াম অবস্থায় তরকারীর স্বাদ চেখে দেখলে ছিয়ামের কোন ক্ষতি হবে কি?, তরকারীর স্বাদ ছিয়াম অবস্থায় চেখে দেখলে ছিয়ামের কোন ক্ষতি হবে কি? | Tagged

ছিয়াম অবস্থায় মযী নির্গত হ’লে ছিয়াম বিনষ্ট হবে কি?


না। এতে ছিয়ামের কোন ক্ষতি হবে না। কারণ এ ব্যাপারে কোন দলীল নেই। আর এর মাধ্যমে কেবল ওযূ বিনষ্ট হয় (বুঃ মুঃ মিশকাত হা/৩০২)। আর ওযূ নষ্ট হ’লে ছিয়াম নষ্ট হয় না (ফাতাওয়া লাজনা দায়েমা ১০/২৭৩; উছায়মীন, শারহুল মুমতে‘ ৬/২৩৬)।

Posted in ছিয়াম অবস্থায় মযী নির্গত হ’লে ছিয়াম বিনষ্ট হবে কি? | Tagged

ফরয গোসল না করে সাহারী খাওয়ায় কোন বাধা আছে কি?


কোন বাধা নেই। নাপাক অবস্থায় ঘুম থেকে উঠে শুধু সাহারী খাওয়ার সময় অবশিষ্ট থাকলে বিনা গোসলেই সাহারী খাবে। অতঃপর গোসল করে ফজরের ছালাত আদায় করবে (হাইআতু কিবারিল ওলামা ১/৪২৬ পৃঃ)। তবে সাহারী খাওয়ার সুযোগ নেই এমন সময় ঘুম ভাঙলে গোসল করে … Continue reading

Posted in ফরয গোসল না করে সাহারী খাওয়ায় কোন বাধা আছে কি?, সাহারী ফরয গোসল না করে খাওয়ায় কোন বাধা আছে কি? | Tagged

জনৈক নারী ২০ বছর যাবৎ ফরয ছিয়াম নিয়মিতভাবে আদায় করে আসলেও হায়েয অবস্থায় কোন ছিয়াম পালন করেনি। বর্তমানে এজন্য সে অনুতপ্ত। এক্ষণে তার করণীয় কি?


ঐ নারী আল্লাহর নিকটে অনুতপ্ত হৃদয়ে ক্ষমা প্রার্থনা করবে এবং উক্ত ছিয়ামগুলির ক্বাযা আদায় করবে। কেননা আয়েশা (রাঃ) বলেন, আমাদেরকে ঋতুকালীন সময়ে ছিয়ামের ক্বাযা আদায়ের নির্দেশ দেওয়া হ’ত। কিন্তু ছালাতের ক্বাযা আদায়ের আদেশ দেওয়া হ’ত না (মুসলিম হা/৩৩৫; মিশকাত হা/২০৩২; ফাতাওয়া … Continue reading

Posted in হায়েযের ক্বাযা ছিয়াম পালন করতে হবে কি? | Tagged

রামাযান মাসে সফর অবস্থায় ছিয়াম পালন থেকে বিরত থাকা যরূরী কি?


রামাযান মাসে সফর অবস্থায় ছিয়াম রাখা বা ছাড়া উভয়টিই জায়েয। আবু সাঈদ খুদরী, আনাস, ইবনু আববাস (রাঃ) সহ অনেক ছাহাবী থেকে বর্ণিত হয়েছে যে, রাসূল (ছাঃ)-এর সাথে সফরকালে তিনি ছিয়াম পালনকারী বা পরিত্যাগকারী কাউকেই দোষারোপ করেননি। বরং তিনি কখনো রাখতেন … Continue reading

Posted in রামাযান মাসে সফর অবস্থায় ছিয়াম পালন থেকে বিরত থাকা যরূরী কি? | Tagged

ফজরের আযান দেওয়া অবস্থায় সাহারী খাওয়া শুরু করে ছালাত শেষ হওয়া পর্যন্ত খাবার খেয়েছি। আমাদের ছিয়াম কবুল হবে কি?


এমতাবস্থায় ছিয়াম হবে না। বরং ভুলবশতঃ এরূপ করে ফেললে ক্বাযা আদায় করতে হবে। আল্লাহ তা‘আলা বলেন, ‘তোমরা (রামাযানের রাতে) খানাপিনা কর, যতক্ষণ না (রাত্রির) কালো রেখা হ’তে ভোরের শুভ্ররেখা স্পষ্ট হয়(বাক্বারাহ ২/১৮৭)। তবে আযানের পূর্বে খাওয়া শুরু করলে আযান শুরু … Continue reading

Posted in সাহারী ফজরের আযান দেওয়া অবস্থায় খাওয়া শুরু করলে ছিয়াম হবে কি? | Tagged

সাহারী খাওয়ার পূর্বে সিগারেট-তামাক, গুল-জর্দা খেয়ে আমাদের এলাকায় অনেকে ছিয়াম পালন করে। তাদের ছিয়াম কবুলযোগ্য হবে কি?


ছিয়াম পালনের ফরযিয়াত আদায় হয়ে যাবে। কারণ সে ছিয়ামের শর্ত পূর্ণ করেছে। তবে হারাম খাদ্য খাওয়ার কারণে সে গুনাহগার হবে এবং তার ছিয়াম ত্রুটিপূর্ণ হবে। কেননা রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) বলেছেন, যে ব্যক্তি মিথ্যা কথা ও তার উপর আমল করা ছাড়তে পারল … Continue reading

Posted in সাহারী খাওয়ার পূর্বে সিগারেট-তামাক গুল-জর্দা খেলে রোজা হবে কি? | Tagged ,

ফজরের আযানের কতক্ষণ পূর্বে সাহারীর আযান দিতে হবে?


উভয় সময়ের মধ্যে এমন পার্থক্য থাকবে, যাতে একজন ব্যক্তি সহজে ফজরের আযানের পূর্বে প্রয়োজনে রান্না ও খাদ্য গ্রহণ সম্পন্ন করতে পারে। তা একঘণ্টা বা তার কিছু কমবেশী হ’তে পারে। যাতে মানুষ বুঝতে পারে যে ফজরের সময় ঘনিয়ে এসেছে। রাসূলুল্লাহ (ছাঃ)-এর … Continue reading

Posted in সাহারীর ফজরের আযানের কতক্ষণ পূর্বে আযান দিতে হবে? | Tagged ,

নফল ছিয়ামের মধ্যে কোনটি অধিক উত্তম; আইয়ামে বীয না সোম ও বৃহস্পতিবারের ছিয়াম?


সপ্তাহে দু’টি ছিয়াম পালন এবং মাসের আইয়ামে বীযের ছিয়াম উভয়ই উত্তম আমল। দু’টির মধ্যে ছওয়াবের দিক দিয়ে উত্তম-অনুত্তম ভাগ করার অধিকার বান্দার নেই। তবে স্বাস্থ্যগত দিক বিবেচনায় সোমবার ও বৃহস্পতিবার সপ্তাহে দু’দিন ছিয়াম রাখা উত্তম। সপ্তাহে সোম ও বৃহস্পতিবার ছিয়াম … Continue reading

Posted in ছিয়াম কোনটি উত্তম; আইয়ামে বীয না সোম ও বৃহস্পতিবারের ছিয়াম? | Tagged

রামাযান মাসে মাসিকের জন্য বাদ পড়া ছিয়ামগুলি পরবর্তীতে রাখতে হবে কি? রাখা গেলে তা শাওয়াল মাসের ছিয়ামের সাথে রাখা যাবে কি?


অসুস্থতা বা সফরের কারণে ছুটে যাওয়া ছিয়ামসমূহ পরবর্তীতে আদায় করতে হবে (বাক্বারাহ ২/১৮৪; বুখারী হা/৩২১; মুসলিম হা/৩৩৫; মিশকাত হা/২০৩২)। উক্ত ছিয়ামগুলি শাওয়াল মাসের ছয়টি ছিয়াম আদায় করার পরে করবে (বুখারী হা/১৯৫০; মুসলিম হা/১১৪৬; মিশকাত হা/২০৩০)।

Posted in রামাযান মাসে বাদ পড়া ছিয়ামগুলি শাওয়াল মাসের ছিয়ামের সাথে রাখা যাবে কি? | Tagged