Tag Archives: হাঁচি দেওয়া / হাঁচি

পেশাব-পায়খানা করা অবস্থায় যদি হাঁচি আসে, তাহ’লে ‘আলহামদুলিল্লাহ’ বলা যাবে কি?


পেশাব-পায়খানা করা অবস্থায় হাঁচি আসলে ‘আলহামদুলিল্লাহ’ বলা যাবে না। কারণ এ সময় যিকর করা হ’তে নবী করীম (ছাঃ) বিরত থাকতেন। সেকারণ হাজত সম্পন্ন করার পর তিনি ‘গুফরা-নাকা’ বলে আল্লাহর নিকটে ক্ষমা চাইতেন (তিরমিযী হা/৭, সনদ ছহীহ; মিশকাত হা/৩৫৯)।

Posted in পেশাব-পায়খানা করা অবস্থায় হাঁচি আসলে করনীয় কি? | Tagged , ,

ছালাত অবস্থায় হাঁচি আসলে হাঁচির দো‘আ পড়া যাবে কি?


ছালাতের মধ্যে হাঁচি আসলে ‘আলহামদুলিল্লা-হ’ বলা যাবে। কিন্তু মুক্তাদী তার জওয়াবে মুখে ‘ইয়ারহামুকাল্লা-হ’ বলা যাবে না। কারণ তখন সম্বোধনের ব্যক্তি হবে মানুষ, যা ছালাতের মধ্যে জায়েয নয় (বুখারী, মুসলিম, মিশকাত হা/৯৭৮)। এছাড়া নিম্নের দো‘আটিও পাঠ করা যায়। রেফা‘আ ইবনে রাফে (রাঃ) বলেন, একদা আমি … Continue reading

Posted in ছালাত অবস্থায় হাঁচি আসলে হাঁচির দো‘আ পড়া যাবে কি? | Tagged ,

ছালাত অবস্থায় হাঁচি দিলে কি আল-হামদুলিল্লাহ পাঠ করতে হবে? পাশের মুক্তাদী কি এর উত্তর দিতে পারবে?


হাঁচি দাতা আল-হামদুলিল্লাহ পড়বে। কিন্তু পাশের মুক্তাদী তার উত্তর দিবেনা। কেননা উত্তর প্রদানের ব্যাপারে কোন দলীল পাওয়া যায় না (আবুদাউদ হা/৭৪৭, তিরমিযী হা/৪০৪, মিশকাত হা/ ৯৯২)।

Posted in ছালাত অবস্থায় হাঁচি দিলে কি আল-হামদুলিল্লাহ পাঠ করতে হবে? | Tagged | Leave a comment

হাঁচি দেওয়া এবং হাই তোলা:


(চ) রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) বলেন, আল্লাহ হাঁচি পসন্দ করেন এবং হাই তোলা অপসন্দ করেন। অতএব তোমাদের কেউ যখন হাঁচি দেয় এবং‘আলহামদুলিল্লা-হ’ বলে, তখন যে মুসলিম তা শুনে, তার উপরে কর্তব্য হয়ে যায় ঐ ব্যক্তির উদ্দেশ্যে ‘ইয়ারহামুকাল্লা-হ’ বলে দো‘আ করা। তিনি বলেন, হাই তোলা শয়তানের … Continue reading

Posted in হাঁচি দেওয়া এবং হাই তোলা | Tagged | Leave a comment